দুপুর ২:৫২, মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং
/ সাঁতার / জাতীয় সাঁতার শুরু রোববার
জাতীয় সাঁতার শুরু রোববার
নভেম্বর ২৬, ২০১৬

সর্বশেষ জাতীয় সাঁতার চ্যাম্পিয়নশিপ হয়েছিল ২০১৪ সালে গোপালগঞ্জে। এসএ গেমসের অজুহাতে গত বছর প্রতিযোগিতা আয়োজন করেনি বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশন। এক বছর বাদে আবার বসছে দেশের সাঁতারের সবচেয়ে বড় এ প্রতিযোগিতা।  মিরপুর সুইমিং কমপ্লেক্সে রোববার শুরু হয়ে তিন দিনব্যাপী প্রতিযোগিতা শেষ হবে ২৯ নভেম্বর।

সাঁতার ছাড়াও চ্যাম্পিয়নশিপে থাকছে ডাইভিং ও ওয়াটারপোলো ইভেন্ট।  মিরপুর সুইমিং কমপ্লেক্সে স্প্রিং বোর্ড ডাইভিং না থাকায় এ ইভেন্টটি বাংলাদেশ নৌবাহিনী ডাইভিং পুলে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতায় জেলা, বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা, বিকেএসপি, বিশ্ববিদ্যালয়, শিক্ষা বোর্ড, সার্ভিসেস দল এবং সুইমিং ক্লাবসহ ৫৯ দলের ৩৩৪ জন ছেলে, ৮৬ জন মেয়ে অংশগ্রহণ করবেন।

প্রতিযোগিতার বাজেট ২০ লাখ টাকা। স্থানীয় দল, সার্ভিসেস এবং বিকেএসপি বাদে অন্য দলগুলোর সাঁতারু ও অফিসিয়ালদের যাতায়াত, থাকা ও খাওয়ার খরচ বহন করবে বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশন।

জাতীয় সাঁতার উপলক্ষে শনিবার বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. রফিজ উদ্দিন রফিজ গত বছর জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ না হওয়া প্রসঙ্গে বলেছেন,‘বিওএ থেকেই আমাদের বলা হয়েছিল জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজনের চেয়ে এসএ গেমসের প্রস্তুতিতে জোর দিতে। যে কারণে আমরা চ্যাম্পিয়নশিপ করিনি।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক এমভি সাইফ ও ট্রেজারার রেজাউল হক বাদশা।

স্পন্সর ছাড়াই হচ্ছে ২৮তম জাতীয় সাঁতার, ডাইভিং ও ওয়াটারপোলো চ্যাম্পিয়নশিপ। প্রতিযোগিতার ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ লাখ টাকা। বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের নিজস্ব তহবিল থেকে এ অর্থ ব্যয় করা হবে।  প্রাতিযোগিতায় যারা নতুন রেকর্ড গড়বেন তাদের জন্য আর্থিক পুরস্কারও থাকবে। তবে পুরস্কারের পরিমান এখনো ঠিক হয়নি।

রোববার সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের সভাপতি ও নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ। ২৯ নভেম্বর বিকালে সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান জাহিদ আহসান রাসেল, যুব ও ক্রীড়া সচিব কাজী আখতার উদ্দিন আহমেদ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :