সকাল ৬:১৫, মঙ্গলবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / সমালোচকরাই ফুটবল ধ্বংসের অপচেষ্টা করছেন!
সমালোচকরাই ফুটবল ধ্বংসের অপচেষ্টা করছেন!
অক্টোবর ৩০, ২০১৬

আগেই অনুমান করা গিয়েছিল একটি পক্ষের ইন্দনেই হঠাৎ করে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন বর্তমান ফুটবলাররা। তাদের এ আয়োজনে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) যে কলকাঠি নাড়ছে সেটাও চাউর হয়েছিল। অনুমান আর বাস্তবতা ঠিকই মিশে গেছে এক মোহনায়। জাতীয় দলের অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম, সাবেক অধিনায়ক বিপ্লব ভট্টাচার্য্য, জাহিদ হাসান এমিলি আর আতিকুর রহমান মিশুর কন্ঠেও ছিল বাফুফেকে রক্ষার সুর। গত ১০ অক্টোবর থিম্পুতে ভুটানের কাছে লজ্জাজনক হারের পর প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে মিডিয়ার মুখোমুখি হয়েছিলেন বর্তমান ফুটবলাররা। তাদের এ আয়োজনের প্রধান লক্ষ্যই যেন ছিল বাফুফের গুনগান করা।

আজ (রোববার) রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল জাতীয় দল ও ক্লাবের খেলোয়াড়ের ব্যানারে। যেখানে লেখা ছিল-ফুটবল ধ্বংসের অপচেষ্টার প্রতিবাদে-সংবাদ সম্মেলন। তাই ফুটবলারদের কাছে বড় প্রশ্ন ছিল এই অপচেষ্টাকারী কারা? ভুটানের কাছে হার দেশের কোনো মানুষই মেনে নিতে পারেননি। মেনে নেয়ার মতোও নয়। তাই গত প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে ফুটবল অঙ্গনে এ নিয়েই বইছে সমালোচনার ঝড়। সাধারণ মানুষ ফুটবলের এমন হারে সমালোচনা করছেন। পিছিয়ে নেই সংগঠক ও সাবেক ফুটবলাররাও। কিন্তু ভুটানের কাছে ৩ গোল হজম করে মাথা নিচু করে ঘরে ফেরা ফুটবলাররা এখন সমালোচনা হজম করতে পারছেন না। তারা সরাসরি বলে দিয়েছেন যারা এখন ফুটবল নিয়ে সমালোচনামুখর তারই ফুটবল ধ্বংসের অপচেষ্টা করছেন।

মামুনুল ইসলাম বলেছেন,‘যারা সমালোচনা করছেন তারা ফুটবলের ক্ষতি করছেন। এটা চলতে থাকলে আগামীতে পৃষ্ঠপোষক আসবে না। কোন পিতা-মাতা তাদের সন্তানকে ফুটবল খেলতে পাঠাবেন না। অনেকে আমাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কথা বলছেন। এটা বড়ই কস্টের। যারা সমালোচনা করছেন তারা কখনই ফুটবল উন্নয়নে এগিয়ে আসেননি। কখনো আমাদের উপদেশ দেননি। জাতীয় দলের ক্যাম্পেও কখনো আসেনি। বরং তারা বিভিন্ন মিডিয়ায় বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। বড় বড় কথা বলছেন। কিন্তু গঠণমূলক কিছু বলছেন না। ’

সংবাদ সম্মেলনে ভুটানে খেলে আসা মামুনুল, জাহিদ হাসান এমিলি, আতিকুর রহমান মিশু, সোহেল রানা, রায়হান হাসান ও আবদুল্লাহসহ বিভিন্ন ক্লাবের খেলোয়াড়রা উপস্থিত ছিলেন। তবে মোহামেডান, আবাহনী ও শেখ জামালের কোনো খেলোয়াড় দেখা যায়নি। মামুনুল ইসলাম বলেছেন, তারা খুব তাড়াতাড়ি বাফুফে সভাপতির সঙ্গে বসবেন। তাকে অনুরোধ করবেন জাতীয় দলের দিকে আরও নজর দিতে। ফুটবলাররা মনে করেন, ভুটানের কাছে এক ম্যাচ হারের কারণে সব শেষ হয়ে যায়নি। সব কিছুতেই খারাপ সময় আসে। এখন তাদের খারাপ সময় যাচ্ছে। এটা সমালোচনার সময় নয়, সবাই মিলে ফুটবলের উন্নয়নে কাজ করতে হবে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :