ভোর ৫:২৪, বুধবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / সমর্থকদের বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ঘেরাও
সমর্থকদের বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ঘেরাও
অক্টোবর ১১, ২০১৬

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন বাফুফে ঘেরাও করে এর সামনে বাফুফের কর্মকর্তাদের দুয়োধ্বনি সহ নানা প্লাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল সমর্থকরা।

সোমবার (১০ অক্টোবর) এএফসি এশিয়া কাপ প্লে-অফ-২-এর অ্যাওয়ে ম্যাচে ভুটানের কাছে ৩-১ গোলে হেরে যায় বাংলাদেশ, যাকে দেশের ফুটবল ইতিহাসে চরমতম কলঙ্কের দিন হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে।

‘আর কতো নীচে নামলে গদি ছাড়বেন’, ‘বাফুফে পচে গেছে, ফুটবল মরে গেছে’, ‘ফুটবল একাডেমীর খবর কী’ সহ বিভিন্ন প্লাকার্ডে সমর্থকরা মঙ্গলবার বিকেলে বাফুফের সামনে জড়ো হয়।
222
দেশের ফুটবলে স্বার্থে সবকিছু ঢেলে সাজানোর দাবিও উঠেছে। কোথায় গেলেন তারা…? কেউ কিচ্ছু জানে না। তবে আর বেশিকিছু জানতেও চান না সমর্থকরা। পরাজয় দেখতে দেখতে অতিষ্ঠ হয়ে ফেডারেশন ঘেরাও করে সমর্থক দল। সভাপতির পদত্যাগও চেয়েছেন তারা।
এমন লজ্জা দারুণভাবে বিমর্ষ করেছে দেশের ফুটবলভক্তদের। কিন্তু যাদের হাতে বাংলাদেশের ফুটবলের সবকিছু- ঘটনার পরদিন, একেবারেই নিশ্চুপ তারা। ফেডারেশনে ঝুলছে তালা। লাইট বন্ধ, কর্মকর্তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ, সভাপতিও ফোন ধরছেন না।
বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল সমর্থকদের পক্ষ থেকে বলা হয় ফুটবলের উন্নতি করতে হলে তৃণমূলে যেতে হবে। ফিফার অর্থ এবং সরকারি সুযোগ-সুবিধা ও স্পন্সর পেয়েও একটি একাডেমি প্রতিষ্ঠা করাতে পারেনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। বছর দু’য়েক আগে ঘটা করে সিলেটে ফুটবল একাডেমির উদ্বোধন করা হলেও কার্যত সেটাও এখন বন্ধ রয়েছে।

তারা বলেন, পরিকল্পনার অভাবে বেতনভুক্ত গোটা বিশেক কোচ থাকার পরও তাদের ব্যবহার করতে পারছে না বাফুফে। দেশে নেই কোনো কোচিং এডুকেশন প্রোগ্রামও।

এদিকে বাফুফে কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কেউ ফোন ধরেন নি। গতকাল রাতে বাফুফে প্রেসিডেন্ট মুঠোফোনে লেছিলেন, মঙ্গলবার তিনি সংবাদ সম্মেলন করবেন। তবে এ ব্যাপারে বাফুফে থেকে কোনো কিছুই সংবাদকর্মীদের জানানো হয় নি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :