রাত ৪:২৭, বৃহস্পতিবার, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / মেসির প্রস্থান পিতা হারানোর মতোই!
মেসির প্রস্থান পিতা হারানোর মতোই!
অক্টোবর ১৪, ২০১৬

দু’জনই বেড়ে উঠেছেন বার্সেলোনার একাডেমি লা মেসিয়ায়। দু’জনের বয়সই ২৯। লিওনেল মেসিকে যে কয়জন খুব কাছ থেকে দেখেছেন তার মধ্যে অন্যতম জেরার্ড পিকে। বার্সা থেকে মেসিকে হারানোটা বাবা হারানোর সঙ্গে তুলনা করছেন স্প্যানিশ তারকা।
সময়ের পরিক্রমায় নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন আর্জেন্টাইন আইকন। পিকের মাঝে যেন প্রিয় সতীর্থকে হারানোর ভয়ই কাজ করছে। বিশ্বকাপজয়ী এ ডিফেন্ডার সতর্কই করে দিয়েছেন, মেসির প্রস্থানে গভীর প্রভাব পড়বে, শোকাবহ পরিস্থিতির মুখে পড়বে বার্সা।
২০০৪ সালে কাতালানদের একাডেমি থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে পাড়ি জমিয়েছিলেন পিকে। রেড ডেভিলসদের হয়ে ওই বছরই পেশাদার ফুটবলে পা রাখেন। ওল্ড ট্রাফোর্ডে চার মৌসুম কাটিয়ে ফিরে আসেন ন্যু ক্যাম্পে।
বার্সার জার্সিতে এখন পর্যন্ত মেসির সঙ্গে ২৪টি শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছেন পিকে। এ সময়ের মধ্যে পাঁচবার বিশ্বসেরা খেলোয়াড়ের খেতাব ফিফা ব্যালন ডি’অর ট্রফি জিতেছেন বিশ্ব ফুটবলের ুদে জাদুকর।
এক সাাৎকারে মেসিকে নিয়ে নিজের অভিমত তুলে ধরেন পিকে, ‘মেসি সম্পূর্ণরূপে অনন্য… যেদিন সে বার্সা ছেড়ে যাবে ওইদিনটি হবে কারো বাবা হারানোর মতোই। আমরা সবাই এখন লিওকে (মেসি) নিয়ে কথা বলছি, কিন্তু একদিন সে এখানে থাকবে না এবং আমরা শূণ্য হয়ে যাব। তবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বজায় রাখতে আমাদের আবারো নতুন করে শুরু করতে হবে।’
লা মেসিয়ার সোনালি প্রজন্মের একজন মেসি। যেখান থেকে উঠে এসেছেন পিকে, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, জাভি হার্নান্দেজ, কার্লোস পুয়োল ও সার্জিও বুসকেটসের মতো তারকা ফুটবলাররা।
ভবিষ্যতে এমন প্রজন্মের দেখা মিলবে না বলেও সতর্কতা ব্যক্ত করেছেন পিকে, ‘এখানে আর কোনো মেসি থাকবে না। আমরা তা প্রত্যাশাও করছি না। লা মেসিয়া থেকে জাভি, বুসকেটস, পুয়োল, ইনিয়েস্তা ও আমার মতো কেউ বেরিয়ে আসবে না। আশা করা যাক, এমনটি হতে পারে, কিন্তু আমি মনে করি না এমনটি হবে।’
১৩ বছর বয়সে নিওয়েলস ওল্ড বয়েজ (১৯৯৪-২০০০) ছেড়ে স্পেনে উড়াল দেন মেসি। ২০০৪ সালে তার বার্সার মূল দলে অভিষেক ঘটে। এরপর তো সবই ইতিহাস। কাতালানদের হয়ে নিজেকে সর্বকালের সেরাদের কাতারে নিয়ে যান বিশ্ব ফুটবলের এ ুদে জাদুকর। কাবের জার্সিতে এরই মধ্যে ২৯টি শিরোপা জিতেছেন।
এদিকে, ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে নামার জন্য তর সইছে না মেসির। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিপে গত ২২ সেপ্টেম্বরের ম্যাচটিতে (১-১) ডান পায়ের পেশীতে চোট পেয়েছিলেন। এরপর থেকেই তিনি খেলার বাইরে।
সব ঠিক থাকলে শনিবারের (১৫ অক্টোবর) দেপোর্তিভো লা করুণ ম্যাচে মেসিকে মাঠে দেখতে পারেন ফুটবলপ্রেমীরা। ন্যু ক্যাম্পে বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ৮টায় ম্যাচটি শুরু হবে। চারদিন পর (বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টা) চ্যাম্পিয়নস লিগের হাইভোল্টেজ ম্যাচ ম্যানচেস্টার সিটিকে আতিথ্য দেবে বার্সা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :