সকাল ১০:৪২, বৃহস্পতিবার, ৩০শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজ পাকিস্তানের
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজ পাকিস্তানের
অক্টোবর ২৫, ২০১৬

আবুধাবি টেস্টকে পঞ্চম দিন লাঞ্চ বিরতির পর পর্যন্ত টেনে নিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাকিস্তানের ছুড়ে দেয়া ৪৫৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বেশ ভালোই জবাব দিতে শুরু করেছিল ক্যারিবীয়রা। ক্রেইগ ব্রেথওয়েট আর জার্মেইন ব্ল্যাকউডের দৃঢ়তায় এক সময় তো শঙ্কাই সৃষ্টি হয়েছিল, না বুঝি আবার পাকিস্তানই হেরে যায়!

কিন্তু সেই শঙ্কাকে আর বাস্তবে রূপ দিতে দিলেন না ইয়াসির শাহ। একাই ক্যারিবীয় ইনিংসের ওপর মায়াবী ঘূর্ণি ফাঁদ তৈরি করলেন। তাতেই শেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংস। ১০৮ ওভার ব্যাট করে ৩২২ রানে অলআউট হয়ে যায় সফরকারীরা। ফলে ১৩৩ রানের বড় জয়ের সঙ্গে সিরিজও নিজেদের করে নিলো পাকিস্তান। অথচ এখনও সিরিজের একটি টেস্ট বাকি।

প্রথম ইনিংসেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফলোঅন করাতে পারতো পাকিস্তান; কিন্তু তা না করিয়ে বরং তারা নিজেরাই দ্বিতীয় ইনিংসে আবার ব্যাট করতে নেমে পড়ে। সামি আসলাম, আসাদ শফিক, আজহার আলি এবং ইউনিস খান- এই চার ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং তোড়ে ২ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রানে ইনিংস ঘোষণা করেন পাকিস্তান অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক।

ফলে জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৪৫৬ রান। জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে লিওন জনসন এবং ড্যারেন ব্র্যাভোর উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট আর মারলন স্যামুয়েলসের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। স্যামুয়েলস ২৩ রান করে আউট হলেও জার্মেইন ব্ল্যাকউড হাল ধরেন।

তবে দুর্ভাগ্য ব্ল্যাকউডের। মাত্র ৫ রানের জন্য সেঞ্চুরিটা মিস হলো তার। ৯৫ রান করে আউট হন তিনি। তার আগে ৬৭ রান করে আউট হন ক্রেইগ ব্রেথওয়েট। সাই হোপ করেন ৪১ রান। ২৬ রান করেন দেবেন্দ্র বিশু।

ইয়াসির শাহ একাই নেন ৬ উইকেট। দুই ইনিংস মিলিয়ে নিলেন ১০ (৪+৬) উইকেট। জুলফিকার বাবর নেন ২টি, ১টি করে উইকেট নেন মোহাম্মদ নওয়াজ এবং রাহাত আলি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :