রাত ১:৫৭, শনিবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও মাসিক ভাতা দেবে বাফুফে
মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও মাসিক ভাতা দেবে বাফুফে
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৬

আগামী এক বছর (২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ জাতীয় নারী দলের ২৩ খেলোয়াড়কে নিবিড় প্রশিক্ষণের পাশাপাশি তাদের মাসিক ভাতা দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

এমাসের শুরুতে ঢাকায় এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বের গ্রুপ সি-তে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ। থাইল্যান্ডে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে জাপান, অস্ট্রেলিয়া, চীন, দক্ষিণ ও উত্তর কোরিয়া, থাইল্যান্ড, লাওস ও বাংলাদেশ খেলবে চূড়ান্ত পর্বে। এ পর্বের শীর্ষ তিন দল পরবর্তীতে খেলবে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ। সবকিছু মিলিয়ে মেয়েরা যাতে চূড়ান্ত পর্বে ভালো পারফরম্যান্স করতে পারে সেজন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে বাফুফে। শুক্রবার নির্বাহী কমিটির সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন পরিকল্পনার কথা জানায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।

যেখানে জানানো হয়, মেয়েদের পাওয়ার-ফিটনেস বাড়াতে ও টেকনিক্যাল দিকগুলোতে কাজ করার জন্য একজন ট্রেইনার নিয়োগ দেবে বাফুফে। যিনি একইসঙ্গে পুষ্টিবিদের কাজও করবেন। এছাড়া একজন ফিজিও যুক্ত হবেন দলের সঙ্গে। এমনকি এই এক বছর মেয়েদের থাকা খাওয়া ও পোশাক ব্যয় বহন করবে বাফুফেই।

মেয়েদের মাঝে অনেকেই শিক্ষার্থী। তাই একজন করে বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও অন্যান্য বিষয় পড়াতে সক্ষম এমন চারজন শিক্ষক থাকবে মেয়েদের ক্যাম্পে। মেয়েরা যাতে তাদের অভিভাবকদের শূন্যতা অনুভব না করে সে জন্য দেড় মাস পরপর আয়োজন করা হবে ‘প্যারেন্টস ডে’। আবার প্রয়োজন হলে নিজেদের বাড়িতে ফেরার জন্য ছুটি দেওয়া হবে মেয়েদের। এছাড়া মাঠে শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে মেয়েরা যাতে ভড়কে না যায় সেজন্য চূড়ান্ত পর্বের আগে চীন, জাপানের মতো শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে পাঁচ থেকে ছয়টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশের মেয়েরা।

এ প্রসঙ্গে বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দীন বলেছেন, ‘আমরা যে কোনও মূল্যে এ পরিকল্পনা অব্যাহত রাখবো। মেয়েদের অর্জনটা আমাদের কাছে অনেক বড়, আমরা আশা করি তারা আরও উন্নতি করবে। আমরা তাদের নিয়ে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিতে পারবো বলে মনে করি।’

বাফুফের সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাফুফে সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ, বাদল রায়, মহিউদ্দিন মহি, তাবিথ আওয়াল ও মাহফুজা আক্তার কিরণ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :