সন্ধ্যা ৬:৩৬, সোমবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ হকি / মেরিনার শিবিরে বাঁধ ভাঙ্গা উল্লাস
মেরিনার শিবিরে বাঁধ ভাঙ্গা উল্লাস
জুলাই ১, ২০১৬

ড্র করলেই প্রথম বারের মত শিরোপা। মতিঝিল ও আরামবাগ ক্লাব পাড়ার মেরিনার টেন্টে আগাম উৎসব আমেজ বৃহস্পতিবার থেকেই। কিন্তু অঘোষিত ফাইনালের প্রথম অংশের মাঝারমাঝি না যেতেই ০-২ গোলে পিছিয়ে পড়ে অনিশ্চয়তার ঘোর অন্ধকার এসে গ্রাস করেছিল মেরিনার শিবিরে। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য সে অনিশ্চয়তার ঘোর কাটে।

খেলার ৫০ মিনিটে তরুন আরশাদের গোলে ২-২ ‘এ সমতা ফেরার পর থেকেই চাঙ্গা হয় কমলা-নীল শিবির। খেলা শেষ হবার ২ মিনিট আগে ইশতিয়াকের সুযোগ সন্ধানী গোলেই শিরোপা নিশ্চিতের সঙ্গে সঙ্গে জয়োল্লঅসে মাতোয়ারা হয়ে ওঠে মেরিনার সমর্থকরা। সমর্থকদের শুক্রবার পড়ন্ত বিকেলে খেলা শেষ হবার সঙ্গে সঙ্গে হকি স্টেডিয়াম তাদের উৎসব আনন্দের ক্ষেত্র হয়ে যায়।

সাধারন সম্পাদক রানা হাসান, হকি কমিটির চেয়ারম্যান এ কে এম মমিনুল হক সাইদ ও অন্য শীর্ষকর্তা এবং শ`দুয়েক সমর্থক আনন্দের অতিশয্যে ঢুকে পড়লেন মাঠে। জার্মান কোচ পিটার গেরহার্ড, ম্যানেজার দিপু ও অন্যান্য খেলোয়াড়কে নিয়ে শুরু হলো বিজয় আনন্দ উল্লাস। মেরিনার হকি কমিটির চেয়ারম্যান এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ দলের সাফেল্যে উদ্বেলিত হয়ে তাৎক্ষনিকভাবে ১০ হাজার ডলার বোনাস ঘোষনা করলেন।

সাঈদ অমন বোনাস দিতেই পারেন। এটাই যে হকি লিগে মেরিনারের প্রথম শিরোপা। এর আগে দুবার রানার্স অঅপ হয়ে তুষ্ট থাকতে হয়। শিরোপা অধরাই ছিল ক্লাব পাড়ার দলটির। তার চেয়ে অনেক নামী দামি তারকা খেলোয়ারে নেতৃত্বেও মেরিনার চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। তাইতো অধিনায়ক মইনুল ইসলাম কৌশিক আনন্দে উদ্বেলিত। তার অনুভব, `তার দল আসলে সাফল্যর জন্য মুখিয়ে ছিল। সবার প্রানপন চেষ্টা ও পরিশ্রমের ফসল এই শিল শিরোপা।`

তাইতো কৌশিক বলেন, `পুরো দল খুশি। সবাই খুব পরিশ্রম করেছে। আমরা রোজার মধ্যেও নিয়মিত অনুশীলন করেছি। কেউ কেউ রোজা রেখেও নিবিঢ় অনুশীলন করেছে। বলতে পারেন, অনেক কষ্টের ফল এ শিরোপা।`

শুরুতে দুই গোলে পিছিয়ে পড়া প্রসঙ্গে মেরিনার অধিনায়কের ব্যাখ্যা, চ্যাম্পিয়ন হতে আমাদের দরকার ছিল মাত্র এক পয়েন্ট। তাই আমরা একটু সুবিধাজনক অবস্থানে ছিলাম। তাই আত্মবিশ্বাস ছিল। আধুনিক হকিতে দুই গোলে পিছিয়ে পড়া খুব বড় ব্যবধান নয়। আর আমরা এর আগেও পিছিয়ে পড়ে ঘুরে দাড়িয়েছি। তাই সাহস ছিল। উদ্যম হারাইনি।

তার শেষ কথা, `আগের বার আমরা চ্যাম্পিয়ন হবার মত দল ছিলাম না। এবারের দলটি শিরোপা জয়ের দাবিদার ছিল । তাই শেষ হাসিও আমরাই হেসেছি।

ভক্ত ও সমর্থকদের উগ্র আচরণ ও ভাঙ্গচুর সম্পর্কে মেরিনার অধিনায়কের ব্যাখ্যা, ওটা মাঠের বাইরের ঘটনা। আমি মাঠের ভিতরের কথা বলতে পারি। মাঠেতো আর কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেনি। যা হবার গ্যালারিতে হয়েছে।`



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :