রাত ২:২১, বুধবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / নাইট রাইডার্সকে হারিয়ে শীর্ষে সাকিবের জ্যামাইকা
নাইট রাইডার্সকে হারিয়ে শীর্ষে সাকিবের জ্যামাইকা
জুলাই ১৯, ২০১৬

কিংসস্টনের সাবিনা পার্কে নিজেদের সপ্তম ম্যাচে টস হেরে শুরুতেই দলীয় ১৯ রানে দুই ওপেনার গেইল ও ওয়ালটনকে হারিয়ে চাপে পড়ে জ্যামাইকা। তৃতীয় উইকেটে সাঙ্গাকারাকে সঙ্গে নিয়ে ৭২ রানের জুটি গড়ে তোলেন পাওয়েল। টানা দুই ওভারে সাঙ্গাকারা (২৩) ও পাওয়েলকে (৪৪) সাজঘরে ফিরিয়ে খেলায় ফেরার ইঙ্গিত দেয় নাইট রাইডার্স।

আগের দুই ম্যাচে দারুণ খেলা সাকিব এ দিন মাত্র ১০ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তবে শেষ দিকে রাসেলের ২৪ বলে ৪৪ রানের ঝড়ো ইনিংসে ১৫৯ রানের সংগ্রহ পায় জ্যামাইকা। নাইট রাইডার্সের হয়ে কুপার নেন ৩ উইকেট।

জ্যামাইকার দেওয়া ১৬০ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৬ রানের মধ্যেই ম্যাককালাম ও মুনরোর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে নাইট রাইডার্স। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকলেও আমলা খেলতে থাকেন দায়িত্বশীল ইনিংস, একপ্রান্ত আগলে রাখলেও অপরপ্রান্তের ব্যাটসম্যানরা সুবিধে করে উঠতে পারছিলেন না। সাকিব আল হাসান আক্রমণে এসেই আঘাত হানলে, এক পর্যায়ে দলীয় ৬০ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি।

৬০ রানে চার উইকেট হারানো ত্রিনবাগোকে লড়াইয়ে রাখেন আমলা ও রামদিন। তবে ৩৬ বলে ৪২ রান করে ফিরে যান আমলা। এরপর ডোয়াইন ব্রাভোকে দ্রুত বিদায় করেন ডেল স্টেইন। আর পরপর দুই বলে কেভন কুপার ও নারাইনের উইকেট নিয়ে জ্যামাইকাকে জয়ের পথে নিয়ে যান রাসেল। জ্যামাইকার হয়ে ২৩ রানে ৪ উইকেট নেন রাসেল।

এদিন ব্যাটিংয়ের মত বল হাতেও বেশি সুবিধা করতে পারেনি সাকিব। নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট নেন তিনি আর প্রথম দুই ওভারে দেন মাত্র ৯ রান। কিন্তু তৃতীয় ওভারে চড়াও হয়ে ১৯ রান সংগ্রহ করেন হশিম আমলা ও দিনেশ রামদিন। সব মিলিয়ে ২৮ রানে ১ উইকেট নেন সাকিব। এ জয়ে ৭ ম্যাচে জ্যামাইকার পয়েন্ট ‌১১। সমান ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে নেমে গেছে গায়ানা আমাজন ওয়ারিয়র্স।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :