সন্ধ্যা ৬:৪৫, রবিবার, ৩০শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / দুই-তিন দিনের মধ্যেই চুক্তি চূড়ান্ত হবে: সেইন্টফিট
দুই-তিন দিনের মধ্যেই চুক্তি চূড়ান্ত হবে: সেইন্টফিট
জুলাই ১২, ২০১৬

আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর না হলেও বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে কাজ শুরু করে দিয়েছেন বেলজিয়ান কোচ টম সেইন্টফিট। আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে চুক্তি চূড়ান্ত হবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার বাফুফে ভবনে গণমাধ্যমকে বেলজিয়ান এই কোচ বলেন, ‘আমি বাফুফের কাছ থেকে চুক্তিটি পেয়েছি। এটি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করার জন্য আমি আমার আইনজীবীর কাছে পাঠিয়েছি। যখন বাফুফে আমার কাছে চুক্তিটি পাঠিয়েছিল তখন আমি যাত্রা পথে ছিলাম। তাই চুক্তিটি ভালোভাবে দেখতে পারিনি। আশা করি আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই আমি চুক্তিটি চূড়ান্ত করতে পারবো।’

এর আগে জানা যায়, নাইজেরিয়ার ফুটবল দলের জন্য বাছাই কৃত কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন সেইন্টফিট। এ প্রসঙ্গে এই কোচ বলেন, ‘নাইজেরিয়ার ফুটবল ফেডারেশন প্রচার মাধ্যমে প্রকাশ করেছে যে আমি তাদের তিনজন কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছি। আপনারা যেমন দেখেছেন আমি ততটুকুই দেখেছি। গত দু’মাস ধরে আমার কোনও চাকরি নেই। তাই বিভিন্ন ক্লাব ও বিভিন্ন ফুটবল ফেডারেশনকে আমার বায়োডাটা পাঠিয়েছি। এর মধ্যে নাইজেরিয়াও ছিল। তারপর প্রচার মাধ্যমে আসলো যে আমি সংক্ষিপ্ত তালিকায় অন্তর্ভুক্ত। কিন্তু নাইজেরিয়ান ফুটবল ফেডারেশন থেকে আমাকে এ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। ওয়েব সাইটে এটিও রয়েছে যে ১৮ তারিখ সাক্ষাৎকারের দিন ধার্য করা হয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারেও আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও বার্তা বা আমন্ত্রণ আমি পাইনি।’

এমন প্রস্তাব থাকলেও এই মুহূর্তে বাংলাদেশের আসন্ন দুটি ম্যাচ নিয়ে কাজ করতে চান সেইন্টফিট। তিনি বলেন, ‘এখন আমার মূল লক্ষ্য হচ্ছে ভুটানের বিপক্ষে দু’টি ম্যাচের জন্য বাংলাদেশকে তৈরি করা। আমি আশা করি বাংলাদেশ বাছাই পর্বের এই চ্যালেঞ্জ পার হবে এবং পরবর্তীতে দীর্ঘ মেয়াদে বাংলাদেশের সঙ্গে আমি কাজ করতে পারবো। প্রাথমিকভাবে তিনমাসেই আমার এবং বাফুফের সম্পর্ক। এরপরই ভবিষ্যতের চিন্তা ভাবনা।’

এখন পর্যন্ত নাইজেরিয়া থেকে কোনও আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ পাননি বেলজিয়ান এই কোচ। সেক্ষেত্রে করণীয় কী হবে এমন প্রশ্নে সেইন্ট ফিট বলেন, ‘যেহেতু নাইজেরিয়ার কাছ থেকে এখনও কোনও আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব বা আমন্ত্রণ পাইনি তাই সে ব্যাপারে আমার করণীয় কী তা এখন বলা সম্ভব নয়। আমি আশা করি রিয়াল মাদ্রিদও আমাকে ডাকতে পারে। যদি বাংলাদেশকে নিয়ে কাজ করার আগ্রহ আমার নাই থাকতো তাহলে আমি এখানে আসতাম না। খেলোয়াড়দের সঙ্গে ইতোমধ্যেই আমি কথা বলেছি। আমার পরিচয় তুলে ধরেছি এবং তাদের কাছে আমি কী চাই সেটি জানিয়েছি। আমি বাংলাদেশে এসেছি ভুটানের বিপক্ষে বাংলাদেশকে জেতাতে।’

প্রাথমিক দল বাছাই নিয়ে সেইন্টফিট বলেন, ‘যে ৩২ জনকে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর বাইরেও অন্য খেলোয়াড়কে আমি ডাকতে পারি। আমি সব দলের খেলা দেখতে পারিনি। সবাইকে দেখা আমার পক্ষে যেহেতু সম্ভব হয়নি তাই সে দ্বার সব সময় খোলা থাকবে। ১২ জন খেলোয়াড়কে আমি পছন্দ করেছি। অন্যদের সাইফুল বারী টিটু পছন্দ করেছেন। লিগের খেলাগুলো দেখবো। সেখান থেকে খেলোয়াড়দের পছন্দ করবো।’

এই মুহূর্তে বাংলাদেশ নিয়ে নিজের লক্ষ্য সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমার লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে একটি দল হিসেবে তৈরি করা, কোনও খেলোয়াড় তৈরি করা নয়। বাংলাদেশ হবে সেই দল যেটি প্রাথমিকভাবে ভুটান এবং ভবিষ্যতে ভালো ফুটবল খেলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে পারবে। আমি আগামী রবিবার পর্যন্ত অনুশীলন করাবো। তারপর খেলোয়াড়রা ক্লাবে ফিরে যাবে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :