রাত ১:১৯, বুধবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / মোহামেডানকে হারিয়ে স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখল মাশরাফিরা
মোহামেডানকে হারিয়ে স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখল মাশরাফিরা
জুন ৪, ২০১৬

হাসানুজ্জামান ও তাসামুল হকের ব্যাটে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে দুর্দান্ত এক জয় পেয়েছে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে হারিয়ে সুপার সিক্সের সম্ভবনা জিইয়ে রাখলো তারা। প্রথম দশ রাউন্ড শেষে তাদের সংগ্রহ ১০ পয়েন্ট।

শনিবার কলাবাগানের জয়ে ফলে দারুণ জমে উঠলো এবারের লিগ। সুপার সিক্সের শেষ তিনটি দল নিশ্চিত হতে শেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে। শেষ ম্যাচে মাশরাফিরা মুখোমুখি হবে অপেক্ষাকৃত দুর্বল কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীর। তাই সুপার সিক্সে খেলার দারুণ সুযোগ রয়েছে তাদের।

মোহামেডানের দেওয়া ২৯১ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে শুরুতেই জসীমউদ্দিনকে হারায় কলাবাগান। এরপর লিগের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা হাসানুজ্জানকে নিয়ে দুর্দান্ত এক জুটি গড়েন তাসামুল হক। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে দলের পক্ষে ১৪০ রান যোগ করেন এ দুই ব্যাটসম্যান।

এদিন শুরু থেকে ঝড় তোলা হাসানুজ্জামান ৯৫ রানের কার্যকরী একটি ইনিংস খেলেন। মাত্র ৫৩ বল মোকাবেলা করে ৪টি চার ও ৮টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন এ নবীন। এরপর দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তাসামুল হক। ছয় নম্বরে নেমে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন তানভীর হায়দার।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন তাসামুল। ১২৯ বলে ৮টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন এ ব্যাটসম্যান। এছাড়া ৫৯ বলে ৫২ রানে অপরাজিত থাকেন তানভীর। মোহামেডানের পক্ষে ৩৫ রানে ২টি উইকেট পান নাঈম ইসলাম।

এর আগে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে মোহামেডান। দলীয় ২২ রানে ওপেনার হামিদুল ইসলামকে হারিয়ে চাপে পরে তারা। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে নাঈম ইসলামের সঙ্গে ৪৫ রানের জুটি গড়ে দলের প্রাথমিক চাপ সামলে নেন আরেক ওপেনার ইজাজ আহমেদ। দলীয় ৬৭ রানে ইজাজ আহমেদকে হারানোর পর ২ রান যোগ করতেই নাঈমকে হারিয়ে আবারো চাপে পরে তারা।

তবে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ভারতীয় ব্যাটসম্যান বিপুল শর্মাকে নিয়ে দলের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম। ১৭১ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন এ দুই ব্যাটসম্যান। শেষ দিকে আরিফুল হক ও হাবিবুর রহমানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ২৯০ রানের বড় সংগ্রহই পায় দলটি।

এদিন দারুণ এক সেঞ্চুরি তুলে নেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১০০ রান করেন তিনি। ৮৬ বলে ৬টি চার ও ৮টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন তিনি। ৭১ বলে ৫টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৭৫ রান করেন মুশফিক। এছাড়া ইজাজ করেন ৩২ রান। কলাবাগানের পক্ষে ৭৭ রানে ৩টি উইকেট পান দেওয়ান সাব্বির।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :