রাত ৮:২৫, রবিবার, ২৮শে মে, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / ওয়ানডে সিরিজও ইংল্যান্ডের
ওয়ানডে সিরিজও ইংল্যান্ডের
জুন ৩০, ২০১৬

টেস্ট সিরিজের মত ওয়ানডে সিরিজও নিজেদের করে নিলো স্বাগতিক ইংল্যান্ড। চতুর্থ ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৬ উইকেটে হারিয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে স্বাগতিকরা।

লন্ডনের কেনিংটন ওভালে বুধবার টস হেরে শ্রীলংকা ব্যাট করতে নামলে ম্যাচের ১৯ ওভারে বৃষ্টি নামে। পরে খেলা শুরু হলে ম্যাচের দৈর্ঘ্য নেমে আসে ৪২ ওভারে। দ্বিতীয় ওভারেই কুশল পেরেরাকে হারানো শ্রীলঙ্কা প্রতিরোধ গড়ে দানুশকা গুনাথিলাকা ও কুশল মেন্ডিসের ব্যাটে। দ্বিতীয় উইকেটে এই দুই জনে গড়েন ১২৮ রানের চমৎকার জুটি।

তবে বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে বেশিক্ষণ উইকেটে থাকেননি এই দুই ব্যাটসম্যান। ৬৪ বলে ১৩টি চারে সর্বোচ্চ ৭৭ রান করে মেন্ডিসের বিদায়ে ভাঙে শ্রীলঙ্কার প্রতিরোধ। এক ওভার বিরতিতে গুনাথিলাকাকেও বিদায় করেন লেগ স্পিনার আদিল রশিদ। ৬৪ বলে ৬২ রান করে ফিরেন গুনাথিলাকা।

চতুর্থ উইকেটে দিনেশ চান্দিমালের সঙ্গে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের ৮৭ রানের জুটিতে দুই থিতু ব্যাটসম্যানকে হারানোর ধাক্কা সামাল দেয় শ্রীলঙ্কা। একটি চার আর তিনটি ছক্কায় ৫১ বলে ৬৩ রান করে ফিরেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান চান্দিমাল। শেষের দিকে দাসুন শানাকার সঙ্গে ২২ বলে অবিচ্ছিন্ন ৪৬ রানের জুটিতে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩০৫ রান করে শ্রীলঙ্কা। ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের লক্ষ্য দাড়ায় ৩০৮ রান।

শ্রীলঙ্কার দেওয়া লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই মঈন আলিকে হারায় ইংল্যান্ড। তবে দ্বিতীয় উইকেটে জো রুটের সঙ্গে রয়ের ১৪৯ রানের জুটি দলকে জয়ের ভিত গড়ে দেয়। ৫৪ বলে ৯টি চারে ৬৫ রান করে রুট বিদাউ নেয়। অধিনায়ক মরগানের সঙ্গে ৫৪ ও বেয়ারস্টোর সঙ্গে ৬০ রানের আরো দুটি ভালো জুটিতে দলকে জয়ের পথে নিয়ে যান তৃতীয় শতক পাওয়া রয়। ১৩টি চার ও ৩টি ছক্কায় ১৬২ রানে থামে তার ইনিংস। রয়ের বিদায়ের পর বাকি কাজটুকু সহজেই সারেন বেয়ারস্টো ও জস বাটলার।

উল্লেখ্য, আগের তিন ম্যাচের প্রথমটি ড্র হয়, পরেরটি ১০ উইকেটে জেতে ইংল্যান্ড, তৃতীয়টি হয় পরিত্যক্ত।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :