ভোর ৫:৫৭, সোমবার, ২৮শে মে, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / লড়াইটা তামিম, মুশফিকেরও
লড়াইটা তামিম, মুশফিকেরও
মে ১১, ২০১৬

ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে তামিম ইকবালের রান ৫ ম্যাচে ২১৯। মুশফিকুর রহিম অবশ্য কিছুটা এগিয়ে। ৫ ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছে ২৫০ রান। জাতীয় দলের এ দুই ব্যাটসম্যানের মধ্যে যে ব্যাটিংয়ের লড়াই হচ্ছে তা নিশ্চিত করেই বোঝা যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে তামিম ইকবালের আবাহনী ও মুশফিকুর রহিমের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। দেশের দুই শীর্ষ ক্লাবের লড়াই মানেই উত্তেজনা, রোমাঞ্চ, নাটক। সেই লড়াইয়ে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই তো আছেই।

২০০৮-০৯ মৌসুমে তামিম ইকবাল প্রথম খেলেছিলেন আবাহনীতে। ১৭ ম্যাচে ৩৬ গড়ে ড্যাশিং ওপেনারের ব্যাট থেকে এসেছিল ৫৭৬ রান। ১টি সেঞ্চুরির সঙ্গে হাঁকিয়েছিলেন ৪টি হাফসেঞ্চুরি। ওই মৌসুমের পর আবাহনীতে খেলা হয়নি দেশসেরা এ ওপেনারের। ক্লাব কর্মকর্তার সঙ্গে ঝামেলা হওয়ায় তামিম ইকবাল আবাহনী ছেড়ে পরের মৌসুমে যোগ দেয় মোহামেডানে।

অবশ্য মোহামেডানে পরের মৌসুমে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেন তামিম। ইনজুরির কারণে পুরো মৌসুম মাঠের বাইরে কাটাতে হয় তাকে। এক ম্যাচে রান করেছিলেন ১৩। ২০১০-১১ মৌসুমে মতিঝিলের তাঁবুতে ছিলেন তামিম। ১১ ম্যাচে করেছিলেন ৪৪৪ রান। এরপর মোহামেডান থেকেও সরে আসেন তামিম। দলবদলে মোহামেডানের পরিবর্তে নিজের পছন্দের ক্লাবকেই প্রাধান্য দিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে এবারই প্রথম মোহামেডানের জার্সি গায়ে জড়িয়েছেন টাইগার টেস্ট দলপতি। ২১৪টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ খেললেও ঐতিহ্যবাহী আগে কখনো মোহামেডানে খেলার সুযোগ হয়নি মুশফিকুর রহিমের।

প্রথমবারের মত মোহামেডানে খেলে, দলকে বেশ দারুণ নেতৃত্ব দিচ্ছেন মুশফিকুর রহিম। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে মোহামেডান। পাঁচ ম্যাচে চারটিতেই জয় তাদের। অন্যদিকে তামিম ইকবালের আবাহনী পাঁচ ম্যাচের তিনটিতে জয় পেয়েছে, হেরেছে দুটিতে। দেশ সেরা দুই তারকার মুখোমুখি লড়াইয়ে কার মুখে হাসি ফুটে সেটিই এখন দেখার অপেক্ষা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :