সন্ধ্যা ৭:২৩, সোমবার, ২০শে মে, ২০১৯ ইং
/ আইপিএল / ওয়ার্নারদের সঙ্গে সিরিয়াল দেখে কাঁদছিলেন মুস্তাফিজ!
ওয়ার্নারদের সঙ্গে সিরিয়াল দেখে কাঁদছিলেন মুস্তাফিজ!
মে ১৯, ২০১৬



শিরোনাম দেখে চমকে যেতে পারেন! কেউ কেউ বলবেন, কী হাবিজাবিই না লিখে দিয়েছে। তবে মুস্তাফিজ ভক্তদের উদ্দেশ্যে বলছি, সত্যিই ডেভিড ওয়ার্নার, কেনে উইলিয়ামসন কিংবা ইয়ন মরগ্যানদের সঙ্গে বসে ভারতের কালারস টিভিতে সিরিয়াল দেখছিলেন মুস্তাফিজ। শুধু তাই নয়, সেই সিরিয়ালের একটি সিকুয়েন্স দেখে চোখের পানি এসে গিয়েছে উপস্থিত সবার।

চোখের পানি মুছতে যখন সবাই ব্যাস্ত- এ সময়ই হন্তদন্ত হয়ে দরজা ঠেলে প্রবেশ করলেন যুবরাজ সিং। সবাইকে এভাবে কাঁদতে দেখে রাগে-ক্ষোভে টিভিই অফ করে দিলেন যুবরাজ এবং হাতে থাকা দুটি ব্যাগই জোর করে রাখলেন টেবিলের ওপর। বললেন, প্র্যাকটিসের সময় হয়ে গেছে। শুনেই উঠে আসলেন সানরাইজার্স অধিনায়ক ওয়ার্নার। ব্যাগ খুলে দেখলেন তার ব্যাট নেই।

খুজে খুঁজে যখন পাওয়া গেলো না এবং ওয়ার্নারকে দেখা গেলো খুব টেনশনে রয়েছেন। তখন উইলিয়ামসন বললেন, একটি ব্যাটের জন্য এত চিন্তা কেন? মরগ্যান তার নিজের ব্যাট নিয়ে এসে বললেন, তারটা নিয়ে অনুশীলন করতে। কিন্তু ওয়ার্নার গোঁ ধরে বসে আছেন। তিনি যে ব্র্যান্ডের ব্যাট ব্যবহার করেন, সেটা ছাড়া তো আর ম্যাচ জেতা যাবে না। তাহলে কী করা যায়?

তাহলে কী কোন উপায় নেই? কোন পথ কী খোলা নেই ওয়ার্নারের ব্যাট পাওয়ার? আবার তার এই ব্র্যান্ডের ব্যাট পাওয়াও যে খুব কঠিন! সমস্যা সমাধানে এগিয়ে এলেন যুবরাজ সিং। তিনি ফোন করলেন একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে। ডিটিডিসি- নামক এই প্রতিষ্ঠানটিতে অর্ডার দিয়ে দিলেন ব্যাটের জন্য। নির্দেশ দিলেন আর্জেন্ট ডেলিভারির।

অর্ডার দেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সময় হয়ে যায় ম্যাচের। যুবরাজ হাঁকাচ্ছেন, দ্রুত আসুন, দেরি হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু হতাশ ওয়ার্নার তার ব্যাট নেই দেখে হতাশা নিয়ে বসেই রইলেন। এ সময় বাজলো কলিং বেল। উইলিয়ামসন বললেন, নিশ্চয়ই কোচ এসেছেন। দ্রুত গিয়ে দরজা খুললেন তিনি। দেখলেন, কোচ নয়, দাঁড়িযে ডিটিডিসির প্রতিনিধি। তার হাতে প্যাকেট। যেখানে রয়েছে ওয়ার্নারের কাংখিত ব্র্যান্ডের সেই ব্যাট।

ব্যাট পেয়ে অবশেষে হাসি ফুটবল ওয়ার্নারের মুখে। মরগ্যান বললেন, মাত্র ১২ ঘন্টায় কিভাবে সম্ভব- এই ব্যাট পাওয়া? ডিটিডিসি আছে না!

পাঠক, পড়েই মনে হচ্ছে না কোন নাটকের সংলাপ এগুলো! সত্যি ধরলেন- ডিটিডিসি নামের একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন করলেন সানরাইজার্স হায়দারাবাদের এই ক্রিকেটাররা। বিজ্ঞাপনের গল্পটা এভাবেই সাজানো হয়েছিল। বিজ্ঞাপনে দেখা গেছে মুস্তাফিজকে। যদিও তার মুখে কোন সংলাপ ছিল না। শুধু অংশগ্রহণ করেছেন এবং পারফর্ম করেছেন।

এরপর ওয়ার্নাররা কোচও খোঁজা শুরু করে দিয়েছেন ডিটিডিসিতে। তাহলে দেখুন মুস্তাফিজদের নেই নতুন বিজ্ঞাপনটি:



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :