রাত ৮:৫৮, মঙ্গলবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / শুরুতেই আম্পায়ারিং নিয়ে অভিযোগ
শুরুতেই আম্পায়ারিং নিয়ে অভিযোগ
এপ্রিল ২২, ২০১৬

শুক্রবার শুরু হয়েছে ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ। আগের আসরের মত এবারও প্রশ্ন উঠেছে আম্পায়ারিং নিয়ে। প্রথম দিনেই কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের দুই খেলোয়াড় মেহরাব জুনিয়র ও আব্দুর রাজ্জাক রাজের দুইটি আউট নিয়ে ােভ ঝেড়েছে দলটির কর্তৃপ।
এদিন প্রথম ইনিংস শেষে কলাবাগান কর্মকর্তা রিয়াজ আহমেদ আম্পায়ারিং নিয়ে বলেন, ‘এই দুই খেলোয়াড়ের আউট দেখে মনে হয়নি আম্পায়ারিংয়ের কোন উন্নতি হয়েছে। বাইরে থেকে আমাদের মনে হয়েছে আউট হয়নি। বাইরে থেকে অনেকসময় বোঝা যায় না। হয়তো ভুলবশত অথবা দুর্ঘটনাবশত দিয়েছে। খেলোয়াড়রাও আমাদের এসে বলেছে, ব্যাটে লাগেনি আউট দিয়ে দিয়েছে। তানভির আইসিসির ম্যাচে আম্পায়ারিং করে। তার কাছ থেকে এমন আম্পায়ারিং আশা করি নাই।
তবে আম্পায়ারিং নিয়ে কথা শুনতে রাজি নন বিসিবি ও আবাহনীর কর্মকর্তা ইসমাইল হায়দার মল্লিক। তার মতে একটি দল হারলেই তাদের আম্পারিং নিয়ে অভিযোগ থাকে এটা চিরাচরিত। এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি লালিগার উদাহরণ টানেন। এছাড়াও ভারত-বাংলাদেশের ম্যাচের উদাহরণ টেনে বলেন, ‘আম্পায়ার নিয়ে তো আন্তর্জাতিক ম্যাচে ভারতের বিপে খেলা নিয়েও আমাদের অভিযোগ আছে। কয়দিন আগে বার্সেলোনা-অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের খেলা দেখছিলাম সেখানেই রেফারিং নিয়ে বিতর্ক হয়েছে। বিশ্বের সব জায়গায় একটা দল হেরে গেলে রেফারিং বা আম্পায়ারিং নিয়ে অভিযোগ তোলে। এটা চিরাচরিত।’
মল্লিকের মতে এটা স্বাভাবিক ভুল হিসাবে গণ্য করা উচিত। এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘গত দশ বছরের তুলনায় আমাদের আম্পায়ারিং কিন্তু অনেক উন্নত হয়েছে। এখন অনেক আম্পায়ার আন্তর্জাতিক ম্যাচে বাংলাদশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে। বাংলাদেশের ম্যাচ হলেও বাংলাদেশের আম্পায়াররা কিন্তু বাংলাদেশের বিপে ভুল সিদ্ধান্ত দেয়। মানুষ মাত্রই ভুল হয়। এটাকে ভুল হিসাবেই গণ্য করতে হবে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :