রাত ১২:৪৮, মঙ্গলবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / মুশফিকের ব্যাটে মোহামেডানের সহজ জয়
মুশফিকের ব্যাটে মোহামেডানের সহজ জয়
এপ্রিল ২৪, ২০১৬

মুশফিকুর রহিম ও উপুল থারাঙ্গার দায়িত্বশীল এবং নাজমুল হোসেন মিলনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে শুভ সূচনা করেছে ঢাকা মোহামেডান লিমিটেড। মিরপুরের শের-ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ৭৮ রানের বড় ব্যাবধানে পরাজিত করে তারা।

মোহামেডানের দেওয়া ২৮৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে স্কোরবোর্ডে কোন রান যোগ না করতেই আইকন খেলোয়াড় ইমরুল কায়েসকে হারায় ব্রাদার্স। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকলে ৫৩ রানের মধ্যেই শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে দারুণ চাপে পড়ে যায় গোপিবাগের দলটি।

এরপর ইফতেখার সাজ্জাদকে নিয়ে দলের হাল ধরেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জাকির হোসেন। ষষ্ঠ উইকেটে ৮৫ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে চাপ সামলে নেন এ দুই ব্যাটসম্যান। তবে তাদের বিদায়ের পর নূর আলম ছাড়া আর কোন ব্যাটসম্যান সুবিধা করে উঠতে না পারায় ২০৭ রানে অলআউট হয়ে যায় দলটি।

ব্রাদার্সের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬১ রানের ইনিংস খেলেন জাকির। ৮২ বলে ৩টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন তিনি। এছাড়া নূর আলম ৩৬, ইফতেখার সাজ্জাদ ২৯ ও নাফিস ইকবাল ২৬ রান করেন। মোহামেডানের পক্ষে শুভাশিস রায় ২৬ রানে নেন ৩ উইকেট। এছাড়া হাবিবুর রহমান ও এনামুল হক জুনিয়র নেন ২টি করে উইকেট।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ঢাকা মোহামেডান। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে তারা। এরপর শ্রীলংকান উপুল থারাঙ্গাকে নিয়ে হাল ধরেন দলনায়ক মুশফিকুর রহিম। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ১৩৫ রান যোগ করেন এ দুই ব্যাটসম্যান।

প্রায় পাঁচ মাস পর হাফসেঞ্চুরির দেখা পেলেন মুশফিক। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন তিনি। ৮০ বল মোকাবেলা করে এ রান করতে ৯টি চার ও ১টি ছক্কার মার মারেন তিনি। ৮১ বলে ৭টি চারের সাহায্যে ৭০ রান করেন লংকান ওপেনার থারাঙ্গা।

তবে মোহামেডানের বিশাল সংগ্রহে সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছেন নাজমুল হোসেন মিলন। মাত্র ৪১ বলে ৭০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন তিনি। ৫টি চার এবং ৪টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন তিনি। এছাড়া আরিফুল হক করেন ৪১ রান। ব্রাদার্স ইউনিয়নের পক্ষে মোহাম্মদ শহীদ ও আসিফ হাসান ২টি করে উইকেট নেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :