সকাল ১১:০২, রবিবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / চট্টগ্রাম আবাহনীর টানা দ্বিতীয় জয়
চট্টগ্রাম আবাহনীর টানা দ্বিতীয় জয়
এপ্রিল ১১, ২০১৬

কেএফসি স্বাধীনতা কাপে টানা দ্বিতীয় জয় উদযাপন করলো চট্টগ্রাম আবাহনী। আজ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ‘ক’ গ্রুপের খেলায় তারা ২-১ গোলে হারিয়েছে উত্তর বারিধারাকে।

খেলার ১২ মিনিটে দশ জনের দলে পরিণত হয় উত্তর বারিধারা। তাদের নাইজেরিয়ান মিডফিল্ডার কসোকো ওলাফেসামিকে সরাসরি লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন রেফারি জালালউদ্দিন।

চাপ অব্যাহত রেখে চট্টগ্রাম আবাহনী খেলার ১৫ মিনিটে পরপর তিনটি কর্নার আাদায় করে নেয়। তিনটিই বাতাসে বল ভাসান জাহিদ হোসেন। এর মধ্যে তৃতীয়টি ভেদ করেছিল বারিধারা ডিফেন্স। তবে পোস্টের সামনে দাঁড়ানো হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড ফ্যাব্রিচ নোয়েল ও আরেক ফরোযার্ড রুবেল মিয়া কেউই বলের লাইনে গিয়ে তাতে পা ছোঁয়াতে পারেননি।

৩৫ মিনিটে আবারও ব্যর্থ চট্টগ্রাম আবাহনী। এবার বারিধারা গোলরক্ষক রাজিবকে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি অধিনায়ক জাহিদ হোসেন। ফ্যাব্রিচ নোয়েল ঠেলে দিয়েছিলেন মাপা একটি থ্রু। জাহিদ ওয়ান টু ওয়ান পজিশনে বল রাজিবের হাতে তুলে দেন।

প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে দ্রুতগতির একটি পাল্টা আক্রমণ থেকে শট নিয়েছিলেন বারিধারা মিডফিল্ডার রোহিত সরকার। আবাহনী গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা ছিলেন কাছের পোস্টে। বল অন্যপ্রান্তের সাইড পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের চার মিনিটে গোল খরা ভাঙেন জাহিদ হোসেন নিজেই। পাল্টা আক্রমণ থেকে বারিধারার বক্সের ডানপ্রান্তে বল পেয়ে যান জাহিদ। গোলরক্ষক রাজিব ও একজন ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে কোনাকুনি প্লেসিং শটে বল জালে জড়িয়ে দেন জাহিদ।

আবাহনী দুই গোলে এগিয়ে যেতে পারতো ৫৪ মিনিটে। ডান প্রান্ত থেকে নিচু ক্রস দিয়েছিলেন জাহিদ হোসেন। মরোক্কান মিডফিল্ডার তারিক আল জানাবি সুবিধাজনক অবস্থান থেকে হেড করেন সাইড পোস্টের বাইরে।

তবে ৬১ মিনিটে ফ্যাব্রিচ নোয়েল দলের জয় নিশ্চিত করতে ভুল করেননি। জাহিদের থ্রু পাসে বক্সের মাঝ থেকে বল জালে প্লেস করেন হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড।

হতাশ বারিধারার সান্ত্বনাসূচক গোলটি করেন খালেকুজ্জামান। একক প্রচেষ্টায দুইজন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে তিনি ৮৯ মিনিটে ব্যবধান কমান। দুই খেলায় চট্টগ্রাম আবাহনীর পয়েন্ট ছয়। বারিধারা চার ম্যাচে কোনও পয়েন্ট পায়নি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :