সন্ধ্যা ৬:৩৪, সোমবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ / ওয়েস্ট ইন্ডিজ নাকি ইংল্যান্ড : ফয়সালা রোববার
ওয়েস্ট ইন্ডিজ নাকি ইংল্যান্ড : ফয়সালা রোববার
এপ্রিল ২, ২০১৬

শিরোপা জয় ও ফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়েই টি-২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ষষ্ঠ আসরে যাত্রা শুরু করেছিলো ১৬টি দল। কিন্তু ফাইনাল খেলার স্বপ্ন শেষ অবধি পূরণ হলো দু’টি দলের। দল দু’টি হলো-ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে রোববার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় স্বপ্নের ফাইনালে লড়বে এই দুই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফাইনালে খেলার স্বপ্নকে আরও রঙ্গিন করতে শিরোপা জয়ের স্বাদ নিতে চায় ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাই জমজমাট এক ফাইনালের প্রত্যাশায় ক্রিকেটভক্তরা। ২০১০ আসরের শিরোপা জিতেছিলো ইংল্যান্ড। আর পরের আসরের শিরোপা ঘরে তুলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ঐ আত্মবিশ্বাস থেকেই শিরোপা জয়ের সংখ্যা দ্বিগুন করার ল্য ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে এমন ইঙ্গিত দিয়েই রেখেছিলো দু’দল। অবশেষে স্বপ্ন পূরনের দ্বারপ্রান্তে দাড়িয়ে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফাইনালে মঞ্চে সেরা ক্রিকেটটা খেলতে পারলেই ২০১৬ সালে টি-২০ বিশ্বকাপের শিরোপা হাতে উঠবে। তবে শিরোপাটি কার হাতে উঠবে তা স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। কারন শক্তি ও পারফরমেন্সের বিচারে দু’দলই সমানে-সমান। সুপার টেনে নিজেদের শক্তি ও পারফরমেন্স ভালোভাবেই প্রদর্শন করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড। সুপার টেনে একই গ্রুপে ছিলো তারা। তাই সেখানে একবার দেখাও হয়েছে তাদের। তাতে অসহায় আত্মসমর্পনই করেছিলো ইংল্যান্ড। অবশ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটির কাছে নয়, ক্রিস গেইলের কাছে। ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ম্যাচ জয়ের জন্য ১৮৩ রানের টার্গেট দিয়েছিলো ইংল্যান্ড। সেই রান নিজের ব্যাটের ঝলক দিয়েই পার করে দেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্যাশিং ওপেনার ক্রিস গেইল। ১১টি ছক্কা ও ৫টি চারে ৪৮ বলে ১০০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন তিনি। তাতে ১১ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ক্যারিবীয়রা। এরপর আরও দু’টি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের লাইন-আপে প্রথম নাম লেখায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অবশ্য সুপার টেনে নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগাস্তিানের কাছে হেরে বসে ক্যারিবীয়রা। অবশ্য সেই হারের তটা খুবই বেশি গভীর হয়নি স্যামির দলের। তার উপযুক্ত প্রমাণ পাওয়া গেল সেমিফাইনাল ম্যাচে।
টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অসাধারন পারফরমেন্স দেখিয়ে আরেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতের বিদায় ঘন্টা বাজিয়ে দেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আর দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনালে উঠে তারা। ঐ ম্যাচের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বডি ল্যাংগুয়েজ দেখে মনে হয়েছে, শিরোপা জয় করা হয়ে গেছে তাদের। ম্যাচ শেষ হবার পর থেকে এখনও ক্যালিপসো নাচে ডুব দিয়ে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। মুম্বাই থেকে কলকাতা আসার বিমানেও নাচ-গানে মেতে উঠেছিলেন ব্রাভো-স্যামিরা। এই আনন্দ থেকেই নিজেদের চাঙ্গা রাখতে চাইছেন ব্রাভোরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমনটা জানালেন ব্রাভো নিজেই, কি অসাধারন এক ম্যাচই আমরা জিতেছি। বিশ্বের সবাই আমাদের সাদুবাদ জানাচ্ছে। সামনে বড় ম্যাচ। ফাইনাল। কলকাতার ম্যাচ নিয়ে চিন্তা আমরা শুরু করে দিয়েছি। এরমাঝেও নিজেদের চাঙ্গা রাখার চেষ্টা আমরা করি। যা ফাইনালে ভালো কাজে দিবে। ফাইনাল জয়ের ব্যাপারে আমরা দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করা ইংল্যান্ড, পরের ম্যাচগুলোতে ছিলো
দুর্দান্ত। দণি আফ্রিকা, আফগানিস্তান ও শ্রীলংকাকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠে তারা। সেখানে গ্রুপ-২এর চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ডকে হতাশার সাগরে ভাসিয়ে দেয় ইংলিশরা। শেষ চারে ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পায়নি সুপার টেনে সব ম্যাচ জয় করা একমাত্র দল নিউজিল্যান্ড। ৮ উইকেটে ১৫৩ রান করেও ম্যাচ জয়ের স্বপ্ন দেখছিলো নিউজিল্যান্ড। কিন্তু ওপেনার জেসন রয় ও উইকেটরক জশ বাটলারের ব্যাটিং ঝড়ে ১৭ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে নেয় ইংলিশরা। সেই সাথে দ্বিতীয়বারের মত ফাইনালে নাম লেখায় মরগানের দল। তাই দ্বিতীয় শিরোপার স্বপ্নও দেখছে ইংল্যান্ড এমন কথা অকপটে জানালেন দলের সেরা খেলোয়াড় জো রুট, দুর্দান্ত ক্রিকেটই খেলছি আমরা। জয়ের ধারাতেই আছি। সেমিফাইনাল ম্যাচটি আমাদের সাহস অনেকখানি বাড়িয়ে দিয়েছে। বলা যায়-শিরোপা জয়ের ইচ্ছা বাড়িয়ে দিয়েছে। ফাইনালে কি হবে, তা নিয়ে ভাবছি না। খেলার দিকেই আমরা সবচেয়ে বেশি মনযোগী। শিরোপা জয়ের জন্য সর্বোচ্চ খেলাটাই প্রদর্শন করবো আমরা। টি-২০ ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপে রেকর্ড মোটেও ভালো নয় ইংল্যান্ডের। আগের ১৩ লড়াইয়ের মধ্যে মাত্র ৪টিতে জিতেছে তারা। আর ৯টি ম্যাচে জয়ের স্বাদ পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্কোয়াড : ড্যারেন স্যামি (অধিনায়ক), স্যামুয়েল বদ্রি, সুলেমান বেন, কালোর্স বার্থওয়েথ, ডোয়াইন ব্রাভো, জনসন চালর্স, ক্রিস গেইল, জেসন হোল্ডার, এভিন লুইস, অ্যাশলে নার্স, দিনেশ রামদিন, আন্দ্রে রাসেল, মারলন স্যামুয়েলস, লেন্ডল সিমন্স ও জেরম টেইলর।
ইংল্যান্ড স্কোয়াড : ইয়োইন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলী, স্যাম বিলিংস, জশ বাটলার (উইকেটরক), লিয়াম ডৌসন, অ্যালেক্স হেইলস, ক্রিস জর্ডান, লিয়াম প্লাংকেট, আদিল রশিদ, জো রুট, জেসন রয়, বেন স্টোকস, রিসি ট্রপলি, জেমস ভিন্সি ও ডেভিড উইলি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :