সন্ধ্যা ৭:৫৯, শুক্রবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / আড্ডা আর অনুশীলনে দিন কাটছে সাব্বিরের
আড্ডা আর অনুশীলনে দিন কাটছে সাব্বিরের
এপ্রিল ৬, ২০১৬

সকাল ৯টা। রাজশাহীর শহীদ কামারুজ্জামান বিভাগীয় স্টেডিয়ামে একে একে প্রবেশ করছেন জহুরুল ইসলাম, ফরহাদ রেজা, সানজামুল ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত। খানিক বাদে লাল রঙের প্রিয় বাইকটি নিয়ে ছুটে আসলেন সাব্বির রহমান। তাকে দেখে রাজশাহী জেলা ক্রিকেট দলের বাছাই পরীক্ষায় অংশ নিতে আসা অনূর্ধ্ব-১৬ বছরের কয়েকজন কিশোর বলে উঠলো, ‘ওই দেখ, আমাদের সাব্বির রহমান ভাই চলে এসেছেন।’
ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষ। আইপিএল খেলতে সাকিব ও মুস্তাফিজ এখন ভারতে। অন্যদের হাতে তেমন কোনও কাজ না থাকায় সবাই ছুটি কাটাতে ব্যস্ত। সাব্বিরও ২ এপ্রিল দুপুরে ফিরে আসেন তার প্রাণের রাজশাহীতে। তবে এসেই আবার ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। কখনও পদ্মার পাড়ে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা। আর ভক্তদের হায়-হ্যালো’র সঙ্গে চলছে হালের ফ্যাশন সেলফি। এরমধ্যে জাতীয় দলের আরেক ক্রিকেটার মুমিনুল হককে সঙ্গে নিয়ে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় একটি ক্রিকেট একাডেমিও উদ্বোধন করেছেন। রাজশাহীতে আসার পর দুই দিন এসব করেই কেটেছে তার।
গোদাগাড়ীতে ক্রিকেট একাডেমি উদ্বোধন করেন সাব্বির
যে-ই ক্রিকেটের জন্য এতো কদর, ভালোবাসা। সেটাকে তো ঠিক রাখতে হবে। তা না হলে সবই চলে যাবে। তাই সব ভুলে ব্যস্ততা ক্রিকেটকে ঘিরেই। কয়েকদিন বাদে বসছে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের আসর। আর এই আসরে এবার নাসিরের বদলে আইকন খেলোয়াড় হয়েছেন সাব্বির। তাই আন্তর্জাতিক ম্যাচ না থাকলেও প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগকে সামনে রেখে চলছে কঠোর অনুশীলন। কেবল অনুশীলনই নয়, বুধবার জহুরুল, ফরহাদ রেজা, সানজামুলদের সঙ্গে ভাগ করে ম্যাচও খেলেছেন।
অনুশীলনের ফাঁকে কথা হলো সাব্বিরের সঙ্গে। জানালেন রাজশাহীতে এসে সময়টা ভালোই কাটছে তার। তবে কয়েক দিন বাদে প্রিমিয়ার লিগ শুরু হচ্ছে তাই দু’একদিন বিশ্রাম নিয়ে আবার নেমে পড়লেন মাঠে। দলের আইকন খেলোয়াড়ের তকমাটাও বেশ উপভোগ করছেন তিনি। তবে এর মধ্যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে ১ রানের হারটা এখনও ভোগাচ্ছে তাকে। সাব্বির জানালেন কিছুতেই হারটা ভুলতে পারছেন না তিনি। তবে এটাকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখতে চান সাব্বির। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটে অনেক কিছুই আনফরচুনেটলি হয়ে যায়। কিছুই করার থাকে না। ক্রিকেট বলেই এটা সম্ভব। ম্যাচটি আমাদের জন্য অনেক শিক্ষণীয় ছিল। আশা করি ভবিষ্যতে এভাবে আর ম্যাচ হারবো না আমরা।’
গোদাগাড়ীতে ক্রিকেট একাডেমি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা

কথা হলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ধর্মশালায় পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্যালারি থেকে তরুণীর কাছ থেকে বিয়ের প্রস্তাব পাওয়ার বিষয়েও। সাব্বির হেসে হেসে বলেন, ‘হ্যাঁ। আমি দেখেছি সেটা। তবে তেমন কিছু মনে হয়নি। কারণ ভক্তরা অনেক কিছু করে থাকেন। তাই এসব লক্ষ্য করে চাপ কমানোর জন্য মাঠের ভেতরে ফিল্ডার কিংবা আম্পায়ারের সঙ্গে কথা-বার্তা বললে খেলায় মনোযোগী থাকা যায়।’
৪৪ গড়ে ১৭৬ রান করে এশিয়া কাপের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন সাব্বির। বিশ্বকাপেও নিজের নামের প্রতি সুবিচার করেছেন এই ড্যাশিং ব্যাটসম্যান। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দলে জায়গাটা মোটামুটি পাকাপোক্ত করে ফেলেছেন তিনি। আগামীর পরিকল্পনা সম্পর্কে সাব্বির বলেন, ‘ফর্ম ভালো চলছে। তবে ব্যাটিংয়ে আরও উন্নতি করতে হবে। সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি আমি।’ তবে সাব্বিরের ধ্যান-জ্ঞান ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই নিজের জায়গাটা পোক্ত করা।

২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে অভিষেক হবার পর এখন পর্যন্ত দুটি টি-টোয়েন্টি ও ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলেছেন সাব্বির। এই সময়ে অভিজ্ঞতাও বেড়েছে তার। সাব্বির বলেন, ‘প্রথম বিশ্বকাপ খেলার সময় সম্পূর্ণ আবেগে ছিলাম। নিজে নিজে প্র্যাকটিস করতে পারতাম না। শুধুমাত্র টিম প্র্যাকটিস করতাম। টি-টোয়েন্টি টিম থেকে বাদ পড়ার পর বুঝলাম দলে টিকে থাকতে হলে কিছু করে দেখাতে হবে। এরপর ওয়ানডে দলেও জায়গা পেলাম। আসলে এখন পর্যন্ত সবকিছুই ইতিবাচকভাবে ঘটছে।’

এর মধ্যে তিনটি বিশ্বকাপ খেললেও টেস্ট দলে জায়গা পাননি এখনও। এ ব্যাপারে সাব্বির রহমান বলেন, `টেস্ট খেলা প্রত্যেক ক্রিকেটারেরই স্বপ্ন থাকে। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে ভালো খেলছি। আশা করি টেস্ট দলেও জায়গা পেয়ে যাব।’

ব্যক্তিগত লক্ষ্য সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে সাব্বির বলেন, ‘ক্যারিয়ারে প্রতিটি ম্যাচই নতুন। নিত্যনতুন চাপ মোকাবেলা করতে শিখছি। খারাপ করলেই দল থেকে বাদ পড়ে যেতে পারি, কারণ মূল দলের বাইরে অনেকে আছে, যারা ভালো খেলছে। তাই দলে টিকে থাকতে হলে পারফর্ম করতে হবে। এখন পর্যন্ত এভাবেই টিকে আছি। টিকে থাকতে চাই। এর জন্য মেধার পাশাপাশি পরিশ্রমের বিকল্প নেই।’

বাংলাদেশ দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে অন্যদের মতো উচ্ছ্বসিত সাব্বিরও। টাইগাররা যে এখন আর আন্ডারডগ নয়, সেটা মানেন সাব্বিরও। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘দল হিসেবে প্রতিটি সিরিজেই ভালো করছি আমরা। ভারত-পাকিস্তানের মতো বাংলাদেশও এখন ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তি। বড় দলগুলোকে হারানোটা আমাদের অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে।’ তবে প্রশংসায় গা ভাসাতে চান না তিনি। জানালেন উন্নতির এই ধারাবাহিকতাটা বজায় রাখতে হবে। সাকিব-মুস্তাফিজরা আইপিএল খেলতে ভারতে গেছেন। সাব্বিরের বিশ্বাস সাকিবের মতো মুস্তাফিজও আইপিএল-এ ভালো পারফর্ম করবেন। দুজনকে শুভকামনা জানাতে ভোলেননি এই তারকা ব্যাটসম্যান। কথা শেষে বিদায় নেওয়ার সময় সাব্বির দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন। সাব্বির বলেন, ‘দেশবাসীর ভালোবাসা ও দোয়ায় আমি এই পর্যন্ত এসেছি। সবাই আমার জন্য আরও দোয়া করবেন সামনের দিনগুলোতে আমি যেন আপনাদের প্রত্যাশামতো খেলতে পারি।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :