রাত ৯:২৯, মঙ্গলবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ / মুস্তাফিজকে ছাড়াই শুরু হচ্ছে টাইগারদের বিশ্বকাপ মিশন
মুস্তাফিজকে ছাড়াই শুরু হচ্ছে টাইগারদের বিশ্বকাপ মিশন
মার্চ ৮, ২০১৬

ইনজুরির কারণে মুস্তাফিজুর রহমানকে ছাড়াই বুধবার থেকে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের। বুধবার বেলা সাড়ে তিনটায় হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম রাউন্ডে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে টাইগাররা।
ম্যাচ শুরুর আগে ঠিক স্বস্তিতে নেই টিম মাশরাফি। খেলাটা যেহেতু ভারতীয় উপমহাদেশে সঙ্গত কারণেই কিছুটা হলেও হোম কন্ডিশনের সুবিধা পাওয়ার কথা বাংলাদেশের। কিন্তু হচ্ছে উল্টো। পাহাড় বেষ্টিত শহর ধর্মশালার কন্ডিশন অনেকটা নেদারল্যান্ডসের মতোই বলা চলে। শীতের সময় ধর্মশালার তাপমাত্রা নেমে যায় হিমাঙ্কের অনেক নিচে। এখনও সেখানে সন্ধ্যা নামলে সেখানে প্রচণ্ড শীত।
এশিয়া কাপের ফাইনালে ওঠায় বাতিল করতে হয়েছে টাইগারদের দুটো প্রস্তুতি ম্যাচ। ফলে কন্ডিশনের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সময়ই পায়নি মাশরাফিরা। তার ওপর যোগ হয়েছে বৃষ্টির আশঙ্কা। গত সোমবার দিবাগত রাতে বিরতিহীন বৃষ্টি হয়েছে। তবে মঙ্গলবার সকাল থেকে ঝকঝকে রোদে সেই আশঙ্কা উধাও। সকাল ১০টা থেকে প্রায় তিন ঘণ্টা হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন মাঠে নিজেদের ঝালিয়ে নিলেন মাশরাফিরা।
সংবাদ সম্মেলনে বৃষ্টি নিয়ে আশঙ্কার কথা জানালেন মাশরাফি। তিনি বলেন, টি-টোয়েন্টি খেলা মোমেন্টামের ওপর নিভর্ র করে। যেমন আমরা যে এশিয়া কাপের ফাইনাল খেললাম, তাতে আমরা একরকম ফোকাস নিয়ে গেছি, দুই ঘণ্টা বৃষ্টির জন্য খেলা বন্ধ থাকাতে আরেক রকম হয়েছে। আমরা এখন শুধু আল্লাহকে ডাকতে পারি, বৃষ্টি যেন না হয়। যেমন মানসিকতা নিয়ে এসেছি তা নিয়েই যেন খেলতে পারি। বৃষ্টি হলে অবশ্যই অনেক কিছু হিসাব-নিকাশ করতে হয়। মাঠেরও একটা ব্যাপার থাকে। পরিকল্পনারও অনেক ঝামেলা হয়। আমরা চাই না বৃষ্টি হোক।
তবে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে মাশরাফিদের জন্য খুব একটা সুখবর নেই। ১৭ মার্চ পর্যন্ত ধর্মশালায় বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে এ ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপ শুধু নেদারল্যান্ডস নয়, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় চার হাজার ফিট উঁচু ধর্মশালার পরিবেশের সঙ্গেও যুদ্ধ করতে হবে টাইগারদের।
সংবাদ সম্মেলনে সেকথা স্মরণ করিয়ে মাশরাফি বলেন, ভারতের বেশির ভাগ জায়গা আমাদের মতোই। কিন্তু এই জায়গাটা নয়। এখানে কিছু পার্থক্য অনুভব করেছি। যেমন শ্বাস নিতে একটু সমস্যা হয়। আশা করি, আমরা এই সব ব্যাপারের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারব। আশা করি, আমাদের সেরাটা দিতে পারব।
অন্যদিকে বাংলাদেশকে প্রচ্ছন্ন হুমকি দিয়ে রেখেছেন ডাচ অধিনায়ক পিটার বোরেন। বাংলাদেশকে ফেভারিট মানলেও তার দল অঘটন ঘটাতে চায় বলে জানান তিনি।
মুস্তাফিজকে ছাড়াই মিশন শুরু
এদিকে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপে প্রথম ম্যাচে মুস্তাফিজুর রহমানের না খেলা এক রকম নিশ্চিত। শঙ্কা আছে তার প্রথম রাউন্ডে খেলা নিয়েই। মঙ্গলবার ধর্মশালায় বাংলাদেশ দলের প্রথম অনুশীলন সেশনে দলের সঙ্গেই রানিং-স্ট্রেচিং করেছেন মুস্তাফিজ। কিন্তু নেট সেশন শুরু হতেই খানিকটা দলছুট এই বাঁহাতি পেসার। ঘণ্টা দুয়েকের নেট সেশনে দলের অন্যরা যখন ঘাম ঝরালেন ব্যাট-বলে, মুস্তাফিজ তখন এক পাশে ছিলেন ফিজিও বায়েজিদুল ইসলামের সঙ্গে। পুরো সময়টাই নানা ফিটনেস ড্রিল করে গেলেন ফিজিওর হাতে নির্দেশনা মত।
গত কয়েক দিন ধরে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া চলছে মুস্তাফিজের। চলবে খুব সম্ভবত আরও কিছু দিন। যে ‘সাইড স্ট্রেইন’ নিয়ে এশিয়া কাপের মাঝপথে ছিটকে গিয়েছিলেন তরুণ পেসার, সেটি তাকে বাইরে রাখছে বিশ্বকাপের শুরুতেও। অবস্থার অতি নাটকীয় উন্নতি না হলে নেদারল্যান্ডসের বিপে মুস্তাফিজকে পাচ্ছে না বাংলাদেশ।
আনুষ্ঠানিকভাবে অবশ্য এই ঘোষণা দেওয়া হয়নি। তবে দলের একটি সূত্র জানিয়েছেন, সেরে উঠতে আরও ৭ থেকে ১০ দিনও লেগে যেতে পারে মুস্তাফিজের। ভাগ্য খারাপ হলে, আরও দিন দুয়েক বেশি। প্রথম রাউন্ডের সব ম্যাচেই হয়ত সেরা বোলারকে ছাড়া মাঠে নামতে হবে দলকে।
কৌশলগত কারণেই হয়ত সংবাদ সম্মেলনে মুস্তাফিজের অবস্থা নিয়ে রাখঢাক রেখে উত্তর দিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ধমর্শালায় ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে মুস্তাফিজকে নিয়ে কৌতুহলটা রেখে দিলেন অধিনায়ক।
“মুস্তাফিজের চোট আছে, এটা তো পরিষ্কারই। ফিজিওর সঙ্গে বসতে হবে আমাদের। ফিজিও তাকে দেখছে। এই মুহূর্তে বলতে পারছি না।”
অধিনায়ক যেটা বলতে পারছে না, সেটা বলে দিয়েছে দলের অনুশীলনের নানা চিত্রই। ফিটনেস ড্রিলেই সময় কাটিয়েছেন মুস্তাফিজ, বল করেননি নেটে। তবে বল হাতে বোলিং রান আপে দৌড়েছেন কিছুণ।
অনুশীলন শেষে, সবাই যখন কিটব্যাগ গুছিয়ে ফিরছেন ড্রেসিং রুমে, মুস্তাফিজ এগিয়ে গিয়ে কুড়িয়ে নিলেন একটি বল। ভঙ্গি করলেন বোলিং করার। দীর্ঘায়িত হচ্ছে তার অপো, অপোয় বাংলাদেশও। আপাতত দলের মূল অস্ত্রকে ছাড়াই চলছে রণপরিকল্পনা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :