দুপুর ১২:২৯, সোমবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ / পাকিস্তানের বিপক্ষে মুস্তাফিজকে চাইছেন ম্যাশ
পাকিস্তানের বিপক্ষে মুস্তাফিজকে চাইছেন ম্যাশ
মার্চ ১৫, ২০১৬

২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকেই সবার দৃষ্টি কেড়ে নেওয়া বাংলাদেশের পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ‘ইএসপিএনক্রিকইনফো’র বর্ষসেরা অভিষিক্ত ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতা টাইগারদের এই পেসারকে পাকিস্তানের বিপক্ষে সুপার টেনের প্রথম ম্যাচে দলে চাইছেন দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা।
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকেই বল হাতে ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দেন বোলিং বিস্ময় মুস্তাফিজ। বিশ্ব কাঁপানো এই কাটার স্পেশালিস্ট দেশের মাটিতে পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো বিশ্বমানের ব্যাটিং লাইনআপকে ধসিয়ে দেন। তবে, ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো জাতীয় দলের হয়ে মেগা কোনো ইভেন্টে খেলতে গিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচেই মাঠে নামা হয়নি মুস্তাফিজের।
বাছাইপর্বে নেদারল্যান্ডস, আয়ারল্যান্ড আর ওমানের বিপক্ষে ইনজুরির কারণে মাঠে নামতে পারেননি কাটার মাস্টার। তবে, মূলপর্বে উঠা টাইগারদের প্রথম ম্যাচেই দলে যেতে পারে মুস্তাফিজকে। তেমনটি চাইছেন টাইগারদের দলপতি মাশরাফিও। টাইগার অধিনায়ক জানান, মুস্তাফিজ নেটে ভালো বল করছে। কিন্তু, তারপরও আমি নিশ্চিত না পাকিস্তানের বিপক্ষে তাকে মাঠে পাবো কি না। তার উপর নির্ভর করছে সবকিছু। দলের কোচ এবং ফিজিওর সঙ্গে আলোচনা করে মুস্তাফিজ সিদ্ধান্ত নেবে পাকিস্তানের বিপক্ষে সে ম্যাচে নামবে, কি নামবে না।
বাংলাদেশ ১৬ মার্চ পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামবে। আর সে ম্যাচেই বল হাতে দেখা যেতে পারে কাটার স্পেশালিস্টকে-এমনটি জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।
মাশরাফি মনেপ্রাণেই চাইছেন মুস্তাফিজ সেরে উঠুক। টাইগার দলপতি আরও যোগ করে জানান, এমন কোনো অধিনায়ক নেই যে মুস্তাফিজের মতো বোলারকে দলে চাইবে না। সে আমাদের প্রধান বোলার। আমিও তাকে সুপার টেনের প্রতিটি ম্যাচে মাঠে চাই। কিন্তু, আমি কোনো ঝুঁকি চাইনা, মুস্তাফিজের পুরোপুরি সেরে না উঠা পর্যন্ত।
বাংলাদেশকে বিশ্বমঞ্চের সুপার টেনে খেলতে হবে পাকিস্তান, ভারত, অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। বাছাইপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসকে ৮ রানে হারিয়ে শুরু করে মুস্তাফিজ বিহীন বাংলাদেশ। তামিম-সৌম্য-মুশফিক-সাকিব-মাশরাফি-রিয়াদরা এরপর মাঠে নামে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। তবে, দুর্দান্ত শুরু করেও সে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়। আর নিজেদের সবশেষ ম্যাচে ওমানকে উড়িয়ে দিয়ে সুপার টেনে উঠে এশিয়া কাপের ফাইনালিস্টরা।
এর আগে জানানো হয়েছিল, পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে মুস্তাফিজ শতভাগ ফিট হলেই মাঠে নামবে। চোটের কারণে ফাইনালের এক ম্যাচ আগেই শেষ হয়ে যায় মুস্তাফিজের এশিয়া কাপ। টাইগার এ পেসার এশিয়া কাপে নিজের শেষ ম্যাচ খেলেন ২৮ ফেব্রুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। সে ম্যাচটিতে বাংলাদেশের জয়ে বড় অবদান রাখেন তিনি। আর সে ম্যাচেই পেশিতে টান অনুভব করেন মুস্তাফিজ। ব্যথা আরও বাড়ায় পরদিন তার পরীক্ষা করানো হয়। এমআরআই স্ক্যান রিপোর্টে ধরা পড়ে ডান দিকের চোট। দুইদিন বিশ্রামের পর মুস্তাফিজকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশনা দেন বাংলাদেশ দলের ফিজিও বায়েজিদুল ইসলাম খান।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :