সকাল ১১:১১, শনিবার, ২৪শে জুন, ২০১৭ ইং
/ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ / পরিসংখ্যান বলছে টি-২০ বিশ্বকাপ নেবে বাংলাদেশ
পরিসংখ্যান বলছে টি-২০ বিশ্বকাপ নেবে বাংলাদেশ
মার্চ ১৫, ২০১৬

টি২০ বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে কী অসাধারণ পারফর্ম করেই না মূলপর্বে জায়গা করে নিল বাংলাদেশ। এক তামিম ইকবালের কাছেই পাত্তা পেল না নেদারল্যান্ডস, আয়ারল্যান্ড ও ওমান। ড্যাশিং এ ওপেনারের তিনটি ইনিংস ছিল যথাক্রমে ৮৩*, ৪৭ ও ১০১*। তবে বিশ্বকাপের এবারের আসরে কোন দল হাসবে শেষ হাসি? কার হাতে উঠছে ষষ্ঠ বিশ্বকাপের ট্রফি? এমন প্রশ্নই ক্রিকেটপ্রেমীদের।

টি২০ বিশ্বকাপের এবারের আসরের আগে ইতোমধ্যে বিভিন্ন আঙ্গিকে শুরু হয়ে গেছে জ্যোতিষ গণনা। কেউ বলছে, স্বাগতিক ভারতই জিতবে শিরোপা। কেউবা বলছে অস্ট্রেলিয়া জিতবে প্রথম ট্রফি। আবার কারো ধারণা, চাকার ট্যাগ ভুলে শিরোপা যাবে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরে। আবার কারো বাজি ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ পাকিস্তানের পক্ষে। তবে এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপের পরিসংখ্যান বলছে বিশ্বকাপ নেবে বাংলাদেশ।

এবার দেখে নেয়া যাব সেই পরিসংখ্যান:

আগের পাঁচটি বিশ্বকাপের মঞ্চে ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছে পাঁচটি ভিন্ন দেশের জয়। পাঁচবার বিশ্বকাপ আয়োজন করেছে যথাক্রমে দক্ষিণ আফ্রিকা (২০০৭), ইংল্যান্ড (২০০৯), ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০১০), শ্রীলঙ্কা (২০১২) ও বাংলাদেশ (২০১৪)।

দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত। পরেরবার ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। এ দুইবারের পর থেকে শুরু হয় নতুন চমক। ২০১০ সাল থেকে শিরোপা জিতেছে আগের বারের স্বাগতিক দেশগুলো। যেমন ২০০৯ সালে স্বাগতিক ছিল ইংলিশরা। তারা পরের বার (২০১০) ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো বড় শিরোপা জেতে। ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায় পল কলিংউডের দল।

২০১২ সালে শ্রীলঙ্কা বিশ্বকাপে ৩৩ বছর পর বিশ্বকাপের কোনো আসরে ট্রফি জেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কাইভ লয়েড আমলের পর ক্যারিবীয়দের এটিই ছিল বড় কোনো শিরোপা। ফাইনালে স্বাগতিক লঙ্কানদের কাঁদিয়ে ৩৬ রানে জয় পায় ড্যারেন স্যামির দল।

২০১৪ সালে বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব পায় বাংলাদেশ। কিন্তু পুরোনো রীতি ধরে রাখে শ্রীলঙ্কা। কারণ তারা আগের বারের স্বাগতিক ছিল। মিরপুরের ফাইনালে ভারতকে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপার স্বাদ পান লাসিথ মালিঙ্গার অধীনে কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনের মতো গ্রেটরা। লঙ্কানরা ১৯৯৬ সালে অর্জুনা রানাতুঙ্গার অধীনে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ জিতেছিল। এরপর ওয়ানডে ও টি-২০ মিলিয়ে তিনটি ফাইনালের পর শিরোপা জেতে দলটি। এবারের আসরে তারাই ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন।

পরিসংখ্যান যখন বলছে, শেষ তিন টি-২০ বিশ্বকাপে আগের বারের স্বাগতিক দল জিতেছে, তাহলে এবারের আসরে টাইগারদের শিরোপা জিততে আপত্তি কোথায়? আর ফর্মের বিচারেও এবারের আসরে কোনো দলই মাশরাফিদের খাটো করে দেখছে না। কারণ কয়েকদিন আগেই ঘরের মাঠে এশিয়া কাপে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়ে ফাইনালে জায়াগা করে নেয় মাশরাফির দল।

ইতোমধ্যেই বাংলাদেশকে নিয়ে হিসেব-নিকেশ শুরু করে দিয়েছে প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হতে যাওয়া পাকিস্তান। প্রথম পর্বের পারর্ফম দেখে নড়ে-চড়ে বসেছে আরেক প্রতিপক্ষ স্বাগতিক ভারতও। এবারের আসরে সুপার টেনের গ্রুপ ‘বি’তে স্বাগতিক ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :