রাত ১১:৩৭, বুধবার, ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / জাতীয় মহিলা ফুটবলের চুড়ান্ত পর্ব বুধবার
জাতীয় মহিলা ফুটবলের চুড়ান্ত পর্ব বুধবার
মার্চ ১, ২০১৬

কেএফসি জাতীয় মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপের পঞ্চম আসরের চূড়ান্ত পর্ব বুধবার মাঠে গড়াবে। কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে আট দল দুই গ্রুপে বিভক্ত হয়ে লড়বে শিরোপা জন্য। গত আসরের চ্যাম্পিয়ন দল, বাছাই পর্বের ছয় ভেন্যুর ছয় চ্যাম্পিয়ন দল ও বেষ্ট রানার্সআপ দল চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিচ্ছে। উদ্বোধনী ম্যাচে দুপুর ১টায় ময়মনসিংহ লড়াই করবে রাজবাড়ির বিপক্ষে। দিনের অপর ম্যাচে বিকাল ৩টায় মুখোমুখি হবে বিজেএমসি ও রংপুর। এ আসরের চ্যাম্পিয়ন দলকে পঞ্চাশ ও রানার্সআপ দলকে পঁচিশ হাজার টাকাসহ ট্রফি প্রদান করা হবে। এছাড়া অংশগ্রহনকারী দলগুলোকে দেয়া হবে ৩০ হাজার টাকা করে।
গত নভেম্বরে দেশের ছয়টি ভেন্যুতে ৩৯টি দল নিয়ে শুরু হয়েছিল প্রাথমিক পর্ব। ছয় ভেন্যুর চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে মূল পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বিজেএমসি, রংপুর, রাজবাড়ি, আনসার ভিডিপি, টাঙ্গাইল ও সাতক্ষীরা জেলা দল। আর বাছাই পর্বের বেষ্ট রানার্সআপ হিসেবে চূড়ান্ত পর্বে উঠে আসে খুলনা। এই সাত দলের সঙ্গে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন দল ময়মনসিংহ জেলা দল সরাসরি মূল পর্বে লড়াইয়ে মাঠে নামছে।
এই আট দলকে দুই গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। এ- গ্রুপে রয়েছে ময়মনসিংহ, বিজেএমসি, রংপুর ও রাজবাড়ী। আর গ্রুপ বি- তে আনসার ভিডিপি, টাঙ্গাইল, সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলা দল।
২০০৯ সাল থেকে শুরু হওয়া জাতীয় মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ জাতীয় দল গঠনে দারুন সহযোগিতা করে আসছে। নেপালে গত বছর অনুষ্ঠিত রিজিওনাল মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপের শিরোপা অর্জনকারী বাংলাদেশ দলটিও উঠে এসেছিল এ আসর থেকেই। এ বিষয়ে বাফুফের মহিলা উইংসের কো-চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরন বলেন, মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপ থেকে আমরা প্রতি বছর অনেক প্রতিভাবান ফুটবলার পেয়ে থাকি। গত বছর যে দলটি নেপালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, সেটা এখান থেকেই বাছাই করা ফুটবলারদের দিয়ে তৈরি করা। আমরা এ আসরটি নিয়মিত করতে চাই। এসএ গেমসসহ অন্যান্য আসরের ব্যস্ততার কারনে ইচ্ছে থাকার পরও এতোদিন মূলপর্বের খেলা আয়োজন সম্ভব হয়নি। ফাল্গুনের এ প্রখর রৌদ্রের মধ্যে কমলাপুরের টার্ফ এমনিকেই উত্তাপ ছড়াবে। তার মধ্যে প্রতিদিন দুপুরে দু’টি করে খেলা চালানোর সিদ্ধান্ত সম্পর্কে কিরন জানান, কমলাপুরে মহিলা ফুটবল ছাড়াও আছে তৃতীয় বিভাগের খেলা। বাধ্য হয়েই দুপুরে আমাদের খেলা চালানোর সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :