সকাল ৭:১৬, বৃহস্পতিবার, ২৫শে মে, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / ‘এটা বাফুফের কোড অব কনডাক্ট বিরোধী’
‘এটা বাফুফের কোড অব কনডাক্ট বিরোধী’
মার্চ ১২, ২০১৬

ঢাকার বাইরে এ প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১১টায় আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের কনফারেন্স হলে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রামে বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) করা নিয়ে ফেডারেশনের অনেক কর্মকর্তাদের আপত্তি ছিল। কেউ কেউ গণমাধ্যমে তাদের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন আগেও। এ বিষয়ে গণমাধ্যমে নানা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। ফেডারেশনের একাংশের আপত্তির মধ্য দিয়ে শনিবার এ বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হলো।
সভায় বাফুফের তিন বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুমোদন দেওয়া হয়। উঠে আসে বাফুফের একাংশের আপত্তির বিষয়টি। এ বিষয়ে সভায় নিন্দা প্রস্তাবও গৃহীত হয়।
এতে গণমাধ্যম কর্মীদের প্রবেশের অনুমতি ছিল না। তবে সভা শেষে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন বাফুফে’র সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী, সহ-সভাপতি বাদল রায়, চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার (সিজেকেএস) সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।
চট্টগ্রামে এ সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘বাফুফে একটি সার্বজনীন প্রতিষ্ঠান। জেলা পর্যায়ে বাফুফে’র সভা করার সুযোগ আছে। এটি প্রত্যেক জায়গায় হতে পারে। এবার চট্টগ্রামে হলো।’
এ বিষয়ে ফেডারেশনের একাংশের আপত্তির বিষয়ে আ জ ম নাছির বলেন, ‘যারা ফুটবলের ভালো চান, তাদের উচিত ছিল ফোরামে এসে কথা বলা। কিন্তু তারা এটি না করে বাইরে আপত্তিকর কথা বলছে। এটাকে গণতান্ত্রিক আচরণ বলে না।’
‘এক মাস আগে প্রত্যেক প্রতিনিধিকে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। তাদের লিখিতভাবে আপত্তি জানানোর সুযোগ ছিল।’ যোগ করেন আ জ ম নাছির।
বাদল রায় বলেন, বাংলাদেশের সব জায়গায় ফেডারেশনের সভা হতে পারে। কিছু লোক ফোরামের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী বৈঠকে না এসে ঢাকায় বসে আপত্তিকর কথা বলছে। আমরা এটা নিয়ে সভায় আলোচনা করেছি। এ বিষয়ে সভায় নিন্দা প্রস্তাব গৃহীত হয়। যারা আপত্তিকর কথা বলেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারণ সম্পূর্ণ নীতি নৈতিকতার বিরুদ্ধে তারা এ কাজটি করেছেন। এটা বাফুফের কোড অব কনডাক্ট বিরোধী।’
সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘সভায় অর্থ প্রতিবেদন পাস হয়। তিন বছরের অর্থ প্রতিবেদন অনুমোদন দেওয়া হয়। দু’চারজন ব্যক্তি যারা মিডিয়ায় কথা বলছে এটা বাফুফের কোড অব কনডাক্টের বাইরে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :