ভোর ৫:৫৯, সোমবার, ২৮শে মে, ২০১৭ ইং
/ এসএ গেমস / ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের ফাইনালে উঠার লড়াই
ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের ফাইনালে উঠার লড়াই
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৬

কবিরুল ইসলাম, গোহাটি থেকে : এসএ গেমসের পুরুষ ফুটবলে শনিবার সেমিফাইনালের ম্যাচে মাঠে নামতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। প্রতিপক্ষ স্বাগতিক ভারত। দুপুর ২টায় ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক্স স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি। প্রতিপক্ষ ভারত বলেই হয়তো কোচ গঞ্জালো মরেনো সানচেজের চিন্তা কিছুটা বেশি। তবুও সেমিফাইনালে বাংলাদেশকেই ফেভারিট মানছেন স্পেনিশ এ কোচ। তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে ভারত যে কঠিন দল, সেটা মানতেও সময় নিলেন না। সেমিফাইনালের সিড়িতে পা রাখলেও শিষ্যদের পারফরম্যান্স এখনো মন ভরাতে পারেনি মরেনোকে। দুর্বল ভুটানের সঙ্গে ড্র আর নেপালের বিরুদ্ধে জয় পাওয়া ম্যাচে যে তপু-রেজারা খুব ভালো খেলেছে, সেটা বলা যাবে না। অগোছালো ফুটবল আর ভুল পাসের মহড়া ছিল দু’টি ম্যাচেই। তাই সেমিফাইনালের আগে দলের এমন ভুল-ভ্রান্তিগুলো নিয়েই কাজ করলেন কোচ। সেমি ফাইনালে মহারনে যেনো গত দুই ম্যাচের মতো ভুল না হয়।
গত এসএ গেমসের সেমিফাইনালেও বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল ভারত। ঐ ম্যাচে জিতেই ফাইনালে পা রেখেছিল লাল-সবুজরা। তবে ৬ বছর আগের ভারতের সঙ্গে বর্তমান দলটির তফাৎ বিস্তার। ব্রক্ষ¥পুত্র নদীতে গড়িয়েছে অনেক জল। তারা নিজেদের ফুটবলটাকে যতোটা উপরে তুলেছে, বাংলাদেশ তা পারিনি। তবে এ সব নিয়ে ভাবছেন না দলের ফুটবলাররা। কোচ গঞ্জালোর দিক্ষা নিয়ে নতুন করে শুরু করতে চান রেজাউলরা। স্পেনিশ কোচ মরেনোর টিকি-টাকা দিক্ষাটাই শনিবার কাজে লাগাতে চান। গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে সন্তুষ্ট নন ফুটবলাররাও। তবে সেমিফাইনালে জাতিকে হতাশ করতে চান না তারা- ‘বাবার অসুস্থতার কারণে মানসিকভাবে ভাল ছিলাম না। প্রথম দুই ম্যাচে তাই ভাল খেলতে পারিনি। চেষ্টা করব, টিকি-টাকা ফুটবল খেলে ভারতকে হারাতে। ঘরের মাঠের সুবিধা তারা পেলেও আশা করি ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠব আমরা। দলের সবাই নিজেদের সেরাটা দিতেই মুখিয়ে আছে’- বলছিলেন দলের মিডফিল্ডার হেমন্ত ভিনসেন্ট।
গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দূর্বল ভুটানের সঙ্গে ড্র’য়ের ম্যাচে ছন্দহীন ছিল লাল-সবুজরা। অগোছালো ফুটবল আর সম্মন্বয়হীনতা ছিল ফুটবলারদের মধ্যে। অপরিকল্পিত ফুটবল খেলেছে নেপালের বিপক্ষেও। তবে আগের দুই ম্যাচের মতো শেষ চারের লড়াইয়ে শিষ্যরা হতাশ করবেন না বলেই বিশ্বাস কোচ মরেনোর,-‘প্রথম দুটি ম্যাচ যে মাঠে খেলেছি তা বাজে ছিল। তবে আগামীকাল (আজ) ভাল মাঠে আমরা খেলব। আমার বিশ্বাস এখানে ছেলেরা ভাল ফুটবল খেলবে। আগামীকালের (আজকের) ম্যাচটির জন্য আমরা সবাই প্রস্তুত। আমাদের প্রতিপক্ষ খুবই শক্তিশালী। তবে এ ম্যাচ নিয়ে বেশ রোমাঞ্চিত আমরা। জয়ের জন্য সবাই প্রস্তুত।’
নিজেদের ফেবারিট মানলেও ভারতের বিপক্ষে জয় পাওয়া যে সহজ হবে না, সেটা মানছেন মরেনো,-‘ভারতের খেলোয়াড়রা খুব সিরিয়াস। তারা শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। যাই হোক বাংলাদেশ দল যদি তাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারে তাহলে অবশ্যই ভারতকে হারানো সম্ভব। বাংলাদেশ এখন তাদের সেরা পারফরম্যান্সটা করার জন্য মুখিয়ে আছে। ভাল পারফরম্যান্স করাটাই এখন আমাদের প্রধান লক্ষ্য।’
পরিসংখ্যান অবশ্য বলছে ভিন্ন কথা। অনূর্ধ্ব-২৩ পর্যায়ে দু’দলের মধ্যে পাঁচবারের লড়াইয়ে বাংলাদেশ জিতেছে মাত্র এক ম্যাচে। দুই জয় আছে ভারতের ঝুলিতে। আর দু’টি ম্যাচ ড্র। সর্বশেষ গত বছরের মার্চে ঢাকায় এএফসি বাছাইপর্বে ভারতের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছিল বাংলাদেশ।
এস এ গেমসে বাংলাদেশ
সাল পদক
১৯৮৪ রৌপ্য
১৯৮৫ রৌপ্য
১৯৮৭ নেই
১৯৮৯ রৌপ্য
১৯৯১ ব্রোঞ্জ
১৯৯৩ নেই
১৯৯৫ রৌপ্য
১৯৯৯ স্বর্ণ
২০০৪ নেই
২০০৬ নেই
২০১০ স্বর্ণ



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :