বিকাল ৩:২৭, বুধবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / বাংলাদেশ সুপার লিগের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ম্যরাডোনা!
বাংলাদেশ সুপার লিগের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ম্যরাডোনা!
ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৬

ফ্রাঞ্জাইজিভিত্তিক ক্রিকেট, ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক ফুটবল- অথ্যাৎ মুক্ত বাণিজ্যের যুগে খেলাধুলাকে যে যত বেশি বাণিজ্যিকিকরণ করতে পেরেছে তারাই যেন তত বেশি সফল। ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি দিয়ে উপমহাদেশ থেকে ক্রিকেট বিশ্বে এখন জনপ্রিয় একটি খেলার নাম। ভারতের আইপিএলের দেখাদেখি ফুটবলে শুরু হয়েছিল আইএসএল। তারই দেখাদেখি বাংলাদেশে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ সুপার লিগ (বিএসএল)। শুধু তাই নয়, বিএসএলের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে যেন তেন নাম নয়, খোদ ম্যারাডোনাকেই বেছে নেয়া হয়েছে। এমনকি বিসিএল চলাকালীন বাংলাদেশে অবস্থান করে ম্যারাডোনা এ দেশের ফুটবলকে জনপ্রিয় করে তোলার চেষ্টা করবেন।

বিসিএলের পরিকল্পনার শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল ম্যারাডোনাকেই করা হতে পারে এর শুভেচ্ছাদূত। গত বছর নভেম্বর-ডিসেম্বরেই জানানো হয়েছিল বিএসএল উপলক্ষে স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরও করে ফেলেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। এবার বিএসএলকে সামনে রেখে প্রকাশ করা হবে লোগো উম্মোচন। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি সবার সামনে উন্মুক্ত করা হবে লোগোটি। এরপর থেকেই আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে।

তবে ম্যারাডোনাকে যে বিএসএলে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়েছে এ খবর জানিয়েছে কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা। তাদের ওয়েব সংস্করণে আজ জানানো হয়, ‘বাংলাদেশ সুপার লিগের ব্র্যান্ড অ্যামাসেডর দিয়েগো ম্যারাডোনা।’ আনন্দবাজার এটাও জানিয়েছে, ‘ভারতের আইএসএল-এর প্রায় গায়ে গায়েই হবে বিএসএল। আইএসএল চলে অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর। বাংলাদেশ সুপার লিগ হবে নভেম্বর-ডিসেম্বরে ‘

বিএসএলের লোগো উন্মোচনের পরই ঘোষণা করা হবে কটা দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে এই টুর্নামেন্ট, কারা কিনছেন ফ্রাঞ্চাইজি। শুধু তাই নয় আইএসএলকে ছাপিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সাবেক কিন্তু বড় নামের পেছনে ছুটবে না বাংলাদেশ। ফুটবলার নেওয়া হবে ৩০-এর কোঠার মধ্যেই। একই সঙ্গে বিএসএল হাত বাড়াচ্ছে আইএসএল-এর দিকেও। আইএসএল-এ ভাল খেলা ফ্রি ফুটবলার, কোচদের দিকে নজর রয়েছে বাংলাদেশের নতুন এই লিগের।

আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, ‘সংগঠকদের মতে, বাংলাদেশ ফুটবলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে নতুন এই লিগ। পৌঁছে যাবে বিশ্ব ফুটবলের আঙিনায়। বাংলাদেশ থেকে এখনও পর্যন্ত একজনই আইএসএল খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। তিনি মামুনুল ইসলাম। বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক আইএসএল-এর প্রথম বছর ছিলেন আটলেটিকো কলকাতায়। যদিও সেভাবে খেলার সুযোগ পাননি। এবার বিএসএল-এ দাপিয়ে খেলার জন্য তৈরি বাংলাদেশের ফুটবলাররা। নিজেদের বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার জন্য এটাই হবে মামুনুলদের সেরা মঞ্চ।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :