বিকাল ৩:১৭, বুধবার, ২২শে মে, ২০১৯ ইং
/ এসএ গেমস / পদক বিহীন একদিন
পদক বিহীন একদিন
ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৬



কবিরুল ইসলাম, গোহাটি থেকে : বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার এসএ গেমসে কোন পদকই জিততে পারেনি। পদকবিহীন একটি দিন কাটিয়েছে লাল-সবুজ শিবির। অ্যাথলেটিক্সে এদিন চারটি ইভেন্টে ট্র্যাকে নামলেও আগের দিনের মতোই হতাশ হতে হয়েছে। পদকের জন্য নয়, বাংলাদেশী অ্যাথলেটরা যেনো লড়াই করেছেন পজিশনের শেষ নাম্বারটা এড়ানোর জন্য। এদিন কাবাডিতেও ছিল হতাশা। এমন হতাশার দিনে আশার আলো দেখিয়েছেন ফুটবলাররা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দূর্বল ভুটানের কাছে হেরে যাওয়া রেজা-শাহেদরা বৃহস্পতিবার জয় তুলে নিয়েছেন শক্তিশালী নেপালের বিরুদ্ধে। ২-১ গোলের এ জয় নিয়ে সরাসরি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ চারে নাম লিখিয়েছেন গঞ্জালো মরেনোর শিষ্যরা। ফাইনালের পথে এখন লাল-সবুজ শিবিরের সামনে বাঁধা স্বাগতিক ভারত। শনিবার ইন্ধিরা গান্ধি স্টেডিয়ামে দুপুর ২টায় স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে তারা।
নেপালের বিরুদ্ধে ড্র কিংবা অল্প ব্যবধানে হারলেও সেমিফাইনালে পৌঁছতে পারতো এসএ গেমসের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। কিন্তু ড্র নয়, জয়ের ক্ষুধা নিয়েই গোহাটির সাই স্টেডিয়ামে মাঠে নেমেছিলেন শাহেদ-রুবেল-তপুরা। কিন্তু ম্যাচের শুরুতেই বাংলাদেশ চাপে পড়ে গিয়েছিল গোল হজম করে। মাত্র তিন মিনিটেই এগিয়ে যায় হিমালয়ের দেশটি। রায়হানের ভুলে কর্নার পেয়ে যায় নেপাল। আর সেই কর্নার থেকেই দারুন এক হেডে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন ডিফেন্ডার অন্তত তামাং (১-০)। পিছিয়ে পড়ে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠে লাল-সবুজ শিবির। কিন্তু বেশ কয়েকবার সংঘবদ্ধ আক্রমন করেও গোলে দেখা যখন মিলছিল না, ঠিক তখনি দলকে আনন্দে ভাসান রায়হান। ম্যাচের ৪০ মিনিটে সমতা সূচক গোল করেন রায়হান (১-১)। সমতা ফিরিয়েই আত্মবিশ্বাস যেনো বেড়ে যায় বাংলাদেশের। সেই আতœবিশ্বাস থেকেই প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে দলের স্কোর লাইনটা আরও এক ধাঁপ উপরে নিয়ে যান তরুন ফরোয়ার্ড নাবিব নেওয়াজ জীবন। বক্সের ভেতরে হেমন্ত ভিনসেন্টের মাইনাস থেকে বল পেয়ে এক মুহূর্তও দেরী করেননি বল জালে ঠেলতে। দ্বিতীয়ার্ধেও নিজেদের আক্রমনের ধারাটা ধরে রেখেছিল রেজাউল করিমবাহিনী। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর গোলের মুখ দেখা হয়নি। তাই ২-১ গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভূটানের সাথে ১-১গোলে ড্র করেছিলো বাংলাদেশ। শক্তিশালী নেপালের বিরুদ্ধে জয় পাওয়ায় দারুন খুশী কোচ গঞ্জালো মরেনো,-‘ছেলেদের পারফরম্যান্সে আমরা দারুন খুশী। নেপাল অনেক শক্তিশালী দল। ওদের দলের তিন চারজন ফুটবলার আছেন কোয়ালিটি সম্পন্ন। আশা করছি সেমিফাইনালে ভারতকে পরাস্ত করে আমরা ফাইনালে যেতে পারবো।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :