রাত ২:০৬, শুক্রবার, ২৫শে মে, ২০১৭ ইং
/ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ / তৃতীয় স্থানে চোখ বাংলাদেশের
তৃতীয় স্থানে চোখ বাংলাদেশের
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৬

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জমজমাট লড়াই শেষে তিন উইকেটে হেরে স্বপ্নভঙ্গ বাংলাদেশের যুবাদের। সেমিফাইনালে হারের ক্ষত এখন তৃতীয় স্থান অর্জন করেই ভুলতে চায় মেহেদি হাসান মিরাজরা। শনিবার ফতুল্লার খান সাহেব আলী স্টেডিয়ামে সকাল ৯টায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তৃতীয় স্থান দখল লড়াইয়ে মাঠে নামবে জুনিয়র টাইগাররা।
সেমিফাইনালে হারের পর মিরপুর শের-ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে যুবা টাইগারদের অধিনায়ক মিরাজ বলেন, ‘এটাই শেষ নয়। আরও সামনে যেতে হবে। সামনে আমাদের আরেকটা ম্যাচ আছে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী। ওটাও আমাদের জন্যে খুব গুরুত্বপূর্ণ। ওটা জিততে পারলে, আমার কাছে মনে হবে অনেক বড় একটা প্রাপ্তি। দশটা টেস্ট দলের থেকে যদি আমরা তিনে থাকতে পারি তাহলে আমাদেরকে শীর্ষ পাঁচটি দলের একটি দল ধরা হবে।’
এর আগে ২০০৬ সালে মুশফিকের নেতৃত্বে বাংলাদেশ পঞ্চম স্থান লাভ করে। এতদিন এটাই ছিল সর্বোচ্চ অর্জন। এবার মিরাজরা নুন্যতম চতুর্থ স্থান নিশ্চিত করেছে। তবে তাদের এই অর্জনের চেয়ে আরও বেশিকিছু করবে তাদের পরবর্তী প্রজন্ম। এমনটা আশা করছেন মিরাজ।
এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় চ্যাম্পিয়ন অথবা রানারআপ হওয়াটা বড় বিষয় না। আমরা যে টেস্ট খেলুড়ে দেশ হিসেবে টপ তিন কিংবা পাঁচে আছি এটা অনেক বড় বিষয়। আাস্তে আস্তে আমরা অনেক এগিয়ে যাব। যা আমরা পারিনি, আশা করি সামনের প্রজন্মরা পারবে। মুশফিক ভাইয়েরা পাঁচ নম্বর হয়েছিল। আমরা যদি তিন বা চার নম্বর হই। পরের প্রজন্ম চিন্তা করবে আমাদেরকে চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ হতে হবে। আস্তে আস্তে এগুলোই চিন্তায় বাড়বে।’
অন্যদিকে ২০০০ সালে শ্রীলঙ্কা নিজেদের মাঠে অনুষ্ঠিত যুব বিশ্বকাপে রানারআপ হয়েছিল। এরপর ৭টি বিশ্বকাপে অংশ নিলেও শিরোপার কাছাকাছি যেতে পারেনি লঙ্কানরা। এবারও সিংহের দলটি ব্যর্থ হয়েছে। তাই বাংলাদেশকে হারিয়ে নিজেদেরকে আরেকটু উপরে নিয়ে যেতে চাইবে ম্যাথুউসদের পরবর্তী প্রজন্মরা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :