বিকাল ৫:০০, শনিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ এসএ গেমস / জয়ই লক্ষ্য বাংলাদেশের
জয়ই লক্ষ্য বাংলাদেশের
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৬

ভুটানের সঙ্গে ড্র’টাই বাংলাদেশের অপেক্ষাটা বাড়িয়ে দিয়েছে। ঐ ম্যাচটি জিততে পারলে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যেত লাল-সবুজ জার্সীধারীদের। কিন্তু ভুটানের বিরুদ্ধে ম্যাচে একাধিক সুযোগ পেয়েও গোল করতে না পারায় এখন অপেক্ষা করতে হচ্ছে নেপালের বিরুদ্ধে ম্যাচ পর্যন্ত। হিমালয়ের ফুটবলারদের বিরুদ্ধে হারলেও শেষ চারে যাওয়ার সুযোগ থাকবে গঞ্জালো মরেনো সানচেজের শিষ্যদের সামনে। তবে সে হারটা হতে হবে ৫-০ গোলের কম ব্যবধানে। কিন্তু হার কিংবা ড্র করে নয়, জয় তুলেই সেমিফাইনালে খেলার টিকিট পেতে মরিয়া এসএ গেমসের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। হিমালয়ের ফুটবলারদের বিরুদ্ধে ম্যাচে কোন ভুল করতে চান না তারা। ভুটানের বিরুদ্ধে দলের ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় একাধিক গোলের সুযোগ নষ্ট হয়েছে। প্রথম ম্যাচের ব্যর্থতা ভুলে বৃহস্পতিবার সাই স্টেডিয়ামে জয়ের জন্যই মাঠে নামবেন মরেনোর শিষ্যরা। দুপুর আড়াইটায় শুরু হবে এ ফুটবল দ্বৈরথ।
বুধবার মালিগাঁও রেলওয়ে মাঠে অনুশীলন শেষে মধ্যমাঠের নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় জামাল হোসেন জানান, ‘ভুটানের বিরুদ্ধে আমার যেভাবে খেলেছি, সেটা খুবই হতাশাজনক। অনেক সুযোগ পেয়েছিলাম আমারা। কিন্তু কাজে লাগাতে পারিনি। একটি মাত্র গোল করেছি। ড্র নয়, জয়টাই প্রাপ্য ছিল আমাদের। অন্তত ৫-০ গোলে জিতা উচিত ছিল। কিন্ত তা হয়নি। একটি ম্যাচে এতো সুযোগ মিস করলে সেই ম্যাচ জেতা সম্ভব হয়ে উঠে না। সেটাই হয়েছে প্রথম ম্যাচে।’
ভুটানের বিরুদ্ধে ড্র করলেও বৃহস্পতিবার রেজাউল-শাহেদদে দৃষ্টি জয়ের দিকেই। জয় ছাড়া অন্য কিছুই ভাবছেন না তারা। কোচ গঞ্জালো মরেনো সানচেজ ইতোমধ্যেই ম্যাচের কৌশল বাতলে দিয়েছেন শিষ্যদের। সে পরিকল্পনা নেপালের বিরুদ্ধে মাঠে প্রয়োগ করতে চাইছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা। নিজেদের শতভাগ উজার করে দিতে প্রস্তুত তারা। ‘ভুটানের বিরুদ্ধে ৫-০ গোলের জয় পেলেও আমাদের সঙ্গেও তারা তেমনটাই খেলবে, এটা ভাবার কোন অবকাশ নেই। আমরা আগের ম্যাচ থেকে অনেক কিছু শিখেছি। নিজেদের ভুলগুলো খুঁজে বের করেছি। অনুশীলনে সেই দূর্বল জায়গাগুলো সূধরে নেয়ার জন্য কাজ করেছি। এখন নেপালে বিপক্ষে জয় ছাড়া অন্য কোন কিছুই ভাবছি না। আমাদের লক্ষ্য গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন’- জানালেন জামাল হোসেন। দলের স্কোরাররা গোল না পাওয়ার বিষয়ে এ মিডফিল্ডার বলেন, ‘স্ট্রাইকাররা গোল পাাচ্ছে না এটা চিন্তার বিষয়। তবে এটা ঠিক আমাদের ডিফেন্স থেকে আক্রমনভাগটা দুর্বল।’
বাংলাদেশ দলের আগে একই ভেন্যুতে টানা দুই ঘন্টা অনুশীলনে ঘাম ঝড়িয়েছেন নেপালি ফুটবলাররা। বাংলাদেশকে পরাস্ত করেই ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য তাদের। তবে ভুটানের বিরুদ্ধে এক পয়েন্ট পেলেও লাল-সবুজ জার্সীধারীদের বেশ সমীহ করছে নেপাল। অধিনায়ক বিরাজ মহাজনের কথায় সেটা স্পষ্ট, ‘বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আমরা অনেকবারই খেলেছি। এ দলটি সম্পর্কে আমাদের ভালো ধারনা রয়েছে। ভুটানের বিপক্ষে ড্র করলেও বাংলাদেশ দল শক্তিশালী। তাই তাদের হালকাভাবে দেখার কিছু নেই। ফুটবলে যে কোন কিছুই ঘটতে পারে। আমরা সাবধানী। তাদের বিরুদ্ধে জয় নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়াই আমাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশের রক্ষনভাগকেই শক্তিশালী হিসেবে মানছেন বিরাজ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :