সকাল ১১:৪৫, শনিবার, ২৫শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / শেষ ম্যাচের টিকিট পেতে মরিয়া ক্রিকেটপ্রেমীরা
শেষ ম্যাচের টিকিট পেতে মরিয়া ক্রিকেটপ্রেমীরা
জানুয়ারি ২১, ২০১৬

‘ভাই সামনে যাওয়ার লাইন নাই। টিকিট প্রত্যাশীরা কিছুই মানছেন না। তাদের চাপে আমাদের সদস্যরা ব্যথা পেয়েছেন। শেষ দিনের খেলার টিকিট পেতে প্রত্যাশীরা শেষ কামড় দিয়েছে।’ – এমনটিই বললেন ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইসিবি) সামনে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য সাইফুর রহমান। দর্শকরা টিকিট নিতে এতো ব্যাকুল যে, পুলিশকে মানতেই চাচ্ছেন না বলেও জানান ওই পুলিশ সদস্য।
ব্যাংকটির সামনে দায়িত্বরত পুলিশের আরেক সদস্য শফিকুল ইসলাম বলেন, জীবনে টিকিটের জন্য মানুষ এতো পাগল হতে পারে, তা চাকরি জীবনে দেখি নাই। নারীরাও রাতভর টিকিটের জন্য রাস্তায় থাকতে পারে, এখানেই প্রথম দেখলাম! তিনি বলেন, ব্যাংক কর্তৃপক্ষ শৃঙ্খলা রেখে টিকিট বিক্রি করতে পারছেন না। যে কারণে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন কমছে না।
শুক্রবার ওয়ালটন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট সিরিজের ৪র্থ ও শেষ ম্যাচ খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে বিকাল ৩টায় অনুষ্ঠিত হবে। শেষ দিনের এ খেলা দেখার জন্য দর্শকদের উৎসাহ-উদ্দীপনা আগের দিনগুলোর থেকে বেশি দেখা গেছে।
এ প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইসিবি) সামনে সিটি কলেজের ছাত্র সোহান বাংলানিউজকে বলেন, শেষ দিনের খেলা দেখার মজাই আলাদা। আশা করছি শেষ দিন টাইগাররা সিরিজ জয় করবে। এজন্য সেদিনের টিকিট চাই-ই চাই। ফুলতলা থেকে আসা কলেজের ছাত্র নাজমুল শেখ বলেন, একদিনেরও টিকিট পাইনি। শেষ দিনের টিকিট যেকোনো মূল্যে নিতেই হবে। এজন্য শীতের মধ্যে সারা রাত মশার কামড় খেয়ে নির্ঘুম রাত কাটিয়েছি। যে করেই হোক একটা টিকিট নিয়েই বাড়ি ফিরবো। তিনি জানান, টিকিটের জন্য আমরা কয়েক বন্ধু মিলে সারা রাত রাস্তায় বসেছিলাম। তারপরও লাইনের প্রথম সারিতে এসে দাঁড়াতে পারিনি।
সরেজমিনে দেখা গেছে, পুরুষের পাশাপাশি টিকিট প্রত্যাশী নারীদেরও দীর্ঘ লাইন। যারা টিকিট পেয়েছেন তারাই স্বস্তি আর আনন্দের হাসি নিয়ে বাড়ি ফিরছেন। আর যারা টিকিট পাননি, তারা মনোকষ্ট নিয়ে রয়েছেন অপেক্ষায়। টিকিট প্রত্যাশীদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :