বিকাল ৫:১২, শনিবার, ২৯শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / রোমাঞ্চকর অভিষেকের অপেক্ষায় সোহান
রোমাঞ্চকর অভিষেকের অপেক্ষায় সোহান
জানুয়ারি ১৩, ২০১৬

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে একদিন পরেই। এ সিরিজকে সামনে রেখে খুলনায় এখন নিজেদের প্রস্তুত করতে ব্যস্ত ক্রিকেটাররা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দলে রয়েছেন দু’জন তরুণ ক্রিকেটার। বিপিএলে অনবদ্য বোলিংয়ের পুরস্কার হিসেবে টাইগারদের এই দলে জায়গা করে নিয়েছেন আবু হায়দার রনি।
কাজী নুরুল হাসান সোহান জায়গা পেয়েছেন সর্বশেষ এক বছরের পারফরম্যান্সের বিচারে। পাশাপাশি উইকেট কিপার হিসেবেও দক্ষতা দেখাচ্ছেন খুলনার এই ছেলে। সিরিজ শুরুর আগে ঘুরেফিরে এই দুই ক্রিকেটারের নাম। অভিষেক হতে পারে এদের যে কারও। বিশেষ করে ঘরের মাঠে রোমাঞ্চিত অভিষেক হতে যাচ্ছে নুরুল হাসান সোহানের এমনটা ধরেই নেয়া যায়। টিম ম্যানেজমেন্টও তার উপর খুশী। আর একাদশে সুযোগ পেলে সেটাকে কাজে লাগানোর কথা জানিয়েছেন এই উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান।
নুরুল হাসান সোহান বেশ কিছুদিন ধরেই বিসিবির নজরে ছিলেন। সর্বশেষ বিপিএলে তিনি খেলেছেন দেশসেরা উইকেটকিপার কাম ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের সাথে সিলেট সুপার স্টার্সের হয়ে। মুশিফক থাকতেও তাকে নেওয়া হয়েছিলো দলে, আর সেই সুযোগে নিজেকে চিনিয়েছেন তিনি। বিপিএলের আগেও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ‘এ’ দলের হয়ে ভালো করেছেন সোহান। সর্বশেষ খুলনায় এসে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচেও ভালো স্কোর করেন । এবার মূল দলে খেলার পালা। গত তিনদিনের অনুশীলনে সোহানকে নিয়ে কাজ করেছেন কোচ। দলের ফিল্ডিং কোচকেও দেখা গেছে দীর্ঘক্ষণ সোহানকে উইকেট কিপিংয়ে অনুশীলন করাতে। আর এতে করে মুশফিককে দলে রেখেও সোহানকে দেখা যেতে পারে।
বুধবার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় কোচ চন্ডিকা হাথুরেসিংহও প্রশংসা করেন তরুন এই ব্যাটসম্যান উইকেট রক্ষকের। বলেন, ‘নতুনরা দলে জায়গা পেয়েছে তাদের যোগ্যতায়। সম্প্রতি বিপিএলে ভালো করছে এরা। বিশেষ করে নুরুল হাসান ‘এ’ দলের হয়ে জিম্বাবুয়ে ও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ব্যাটিং এবং উইকেট কিপিং দু’টোতেই বেশ ভালো করেছেন। তার পারফরম্যান্স চোখে পড়ার মতো ছিলো। প্রত্যেকেই তার উইকেট কিপিংয়ে বেশ সন্তুষ্ট। আশা করবো সে একাদশে সুযোগ পেলে এখানেও ভালো করতে পারবে।’
একদিন আগে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন সোহান। নিজের মাঠে অভিষেক হতে পারলে তা হবে বাড়তি রোমাঞ্চের। মুশফিকের মতো খেলোয়াড়কে টিমমেট হিসেবে পেয়েও অনেক ভাগ্যবান জানিয়ে সোহান বলেন, ‘মুশফিক ভাই দেশসেরা উইকেটকিপার। এর আগে বিপএলে তার সাথে ড্রেসিং রুম শেয়ার করেছি। তাতে অনেক কিছু শিখেছি। শুধু মুশফিক ভাই একা নন, অন্য টিমমেটরাও আমাকে অনেক সাপোর্ট দিয়েছেন।’
দলে তার প্রয়োজনটা বেশ ভালোভাবেই জানেন সোহান। আর এজন্য প্রস্তুতও আছেন। দলের প্রয়োজনে যে কোন পজিশনে খেলতে চান তিনি। উইকেটকিপিং না ব্যাটিং কোনটিকে এগিয়ে রাখবেন জানতে চাইলে বলেন, ‘দুটোই আমি খুব উপভোগ করি। উইকেটকিপিং থেকেই শুরু। আর এখন ব্যাটিংটাকেই খুব উপভোগ করছি।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :