রাত ১২:২৩, মঙ্গলবার, ২৭শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / বুধবারই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ
বুধবারই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ
জানুয়ারি ১৯, ২০১৬

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা দুই ম্যাচ জিতে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে দারুণ অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। দলের অধিকাংশ খেলোয়াড়ই রয়েছেন ফুরফুরে মেজাজে। শেষ দুই ম্যাচের একটিতে জয় পেলেই সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়ে যাবে টাইগারদের। তবে শেষ দিনের জন্য অপেক্ষা করতে রাজী নয় বাংলাদেশ শিবির। কালই (বুধবার) জয় নিশ্চিত করতে চায় মাশরাফিবাহিনী। এশিয়া ও বিশ্বকাপের জন্য সেরা কম্বিনেশন খোঁজার লক্ষ্যে পরীক্ষা-নীরিক্ষা চালালেও মাঠের খেলায় কোন ছাড় দিতে রাজী নয় স্বাগতিকরা।
পরীক্ষা-নীরিক্ষার ম্যাচ হলেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই সবসময় যেমন জেতার জন্যে খেলতে নামি কালকেও জেতার জন্যেই নামব। সিরিজ জয়ের জন্যে নামব সেরকম কিছু না। সবাই নিজের কাজটা করতে পারলে এবং ভালো ক্রিকেট খেললে আমরা অবশ্যই জিতব। দল হিসেবে সব দিকে নজর দিতে হবে। টি-টোয়েন্টিতে একদিকে গেলে মনে হয় না ম্যাচ জেতা সম্ভব। এ কারণে তিন বিভাগেই ভালো করতে হবে।’
Bangladesh
আগের দিন খেলোয়াড়রা অনুশীলন না করলেও মঙ্গলবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকেই অনুশীলনে আসে বাংলাদেশ। দলের সব খেলোয়াড়ই নেটে ঘাম ঝরান। শেষ দুই ম্যাচে সোহানকে দিয়ে কিপিং করিয়ে দারুণভাবে সফল হয়েছে বাংলাদেশ। তবে উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ইনজুরিতে পড়ায় দলের কিপিংয়ের একমাত্র বিকল্প এখন সোহানই। তাই এদিন সোহানকে নিয়ে আলাদাভাবে কাজ করতে দেখা গেছে ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হ্যালসলকে।
এছাড়া দলের অন্যতম সেরা দুই বোলার মুস্তাফিজ এবং আল-আমিনকে বিশ্রাম দেয়ায় কাল অভিষেক হতে পারে মোঃ শহীদ, মুক্তার আলী অথবা তরুণ তুর্কি আবু হায়দার রনির। এছাড়াও ইনজুরির কারণে দলের বাইরে থাকা তাসকিন আহমেদও ফিরে আসতে পারেন একাদশে। এদিন বোলারদের নিয়ে আলাদাভাবে কাজ করতে দেখা গেছে প্রধান কোচ হাতুরুসিংহে ও বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিককে।
আগের দুই ম্যাচে নয় ব্যাটসম্যান নিয়ে খেলেছিল বাংলাদেশ। তবে বুধবার মুশফিকের পরিবর্তে একজন বোলার বাড়াতে পারে স্বাগতিকরা। যদি নয় ব্যাটসম্যান তত্ত্বেই থেকে যান মাশরাফিরা, সেক্ষেত্রে একাদশে ফিরতে পারেন ইমরুল কায়েস কিংবা অভিষেক হতে পারে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতেরও।
Bangladesh120160119120833
তবে আগামী ম্যাচ বাংলাদেশ এক বা একাধিক নবীনের অভিষেক প্রায় নিশ্চিত। এ তালিকায় জোরালোভাবে রয়েছেন মোঃ শহিদ এবং আবু হায়দার রনির নাম। নতুনদের নিয়ে দলের এই একাদশে পারফরমেন্সের কোন সমস্যা হবে না জানিয়েছেন সৌম্য। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আসলে ওরকম কোনো চিন্তাও করিনি যে ছন্দ নষ্ট হবে। যারা নতুন আসছে তারা দলের সঙ্গে খেলবে, ভালো করার চেষ্টা করবে। তার থেকেও বড় বিষয় ওদের জায়গা পূরণ করার চে্ষ্টা করবে।’
অপরদিকে সিরিজে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া জিম্বাবুয়েও। এদিন দুপুর দু’টা থেকে চারটা পর্যন্ত টানা অনুশীলন করে তারা। গত কয়েকটি সিরিজ ধরেই ধুঁকছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট। এখনও সেরা কম্বিনেশন খুঁজে পায়নি তারা বলে জানান দলের নির্বাচক ক্যানিয়ন জিল। তাই তৃতীয় ম্যাচে বেশ কিছু নতুন খেলোয়াড়কে দিয়ে পরীক্ষা করাতে পারে জিম্বাবুয়েও। তারপরও তারা সিরিজে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে জানিয়ে জিল বলেন, ‘শারজাহতেও আমরা দুই ম্যাচে হেরে ব্যাকফুটে ছিলাম। এখানেও তাই। মাঝে মাঝে ২-০ পিছিয়ে থাকার পর আমরা নিজেদের সেরাটা খেলতে পারি। সিরিজে সমতা আনতে আমাদের সামনের ম্যাচে অবশ্যই ঘুরে দাঁড়াতে হবে। ছেলেরা তা জানে, আমাদের এটা মাথায় আছে। তবে আমরা এখনও সেরা কম্বিনেশন খুঁজে পাইনি। বিশ্বকাপের জন্য এখনও সেরা দল খোঁজার কাজ করছি। সেরা কম্বিনেশনের জন্য পরীক্ষা চালাচ্ছি, তারপরও আমাদের মাথায় জয়ের কথাটা রয়েছে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :