সকাল ১০:৫২, মঙ্গলবার, ২৫শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / বাংলাদেশের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে চায় জিম্বাবুয়ে
বাংলাদেশের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে চায় জিম্বাবুয়ে
জানুয়ারি ১৪, ২০১৬

বাংলাদেশর বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে চায় জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশের মতো এখান থেকে সেরা কম্বিনেশন খুঁজে বের করার দিকে মনোযোগী সফরকারীরাও! বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানালেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক এলটন চিগুম্বুরা।
সংবাদ সম্মেলনের সেই অংশটুকুই তুলে ধরা হলো-
প্রশ্ন: বিশ্বকাপের আগে এই সিরিজে পরীক্ষা-নিরীক্ষার কোনও সুযোগ আছে কিনা?
চিগুম্বুরা: বিশ্বকাপে কাজে লাগতে পারে এমন আলাদা আলাদা কম্বিনেশন আমরা চেষ্টা করে দেখবো। এ কারণেই ১৫ জনের জায়গায় আমরা ১৬ জন নিয়ে এসেছি। আগামী চার ম্যাচে যে কোনও জায়গায় যে কেউ ব্যাটিং করতে পারে। প্রথম দুই ম্যাচে খেলে কেউ পরের দুই ম্যাচে বসে থাকতে পারে। এই টুর্নামেন্ট মূলত বিশ্বকাপের প্রস্তুতিই হতে যাচ্ছে। একই সঙ্গে আমার ভালো ক্রিকেটও খেলতে হবে।
প্রশ্ন : এই ফরম্যাটে বাংলাদেশ ভালো দল নয়। সেক্ষেত্রে আপনাদের সুযোগ কতটুকু?
চিগুম্বুরা : আগে আমাদের নিজেদের সেরাটা নিশ্চিত করতে হবে। আমাদের প্রক্রিয়াগুলো ঠিক রাখতে হবে। যারা প্রক্রিয়া ঠিক রাখতে পারবে তারাই দিনশেষে জয় লাভ করবে।
প্রশ্ন : বাংলাদেশের চেনা কন্ডিশনে খেলা কতটা স্বস্তির?
চিগুম্বুরা : এখানে আগেও অনেকে খেলেছি, যা আমাদের কাজে লাগবে। আমরা যতো বেশি খেলবো, অন্য প্রতিপক্ষের তুলনায় আমরা (বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে) পরস্পরকে ততো ভালো বুঝতে পারবো। দিন শেষে দলে থাকা প্রত্যেককে নিজেদের দক্ষতা মাঠে ঠিকঠাক প্রয়োগ করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।এখানকার ঘরোয়া ক্রিকেটেও আমাদের অনেকে খেলেছে। ফলে আমরা জানি বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা কিভাবে খেলে।
প্রশ্ন : নিজের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে চিন্তিত কিনা?
চিগুম্বুরা: আমি যতটা সম্ভব ক্রিজে থাকতে পছ্ন্দ করি। সর্বশেষ সিরিজে ওয়ানডেতে আমি একটু আগেই নেমেছি। এখানেও আমাকে একটু আগে দেখা যেতে পারে, যাতে আমি আমার স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারি।
প্রশ্ন : আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজটি খারাপ গেছে, এই সিরিজে সেটা কতটা প্রভাব ফেলতে পারে?
চিগুম্বুরা: আরব আমিরাতে আমাদের খারাপ সময় গেছে। দলে দুই একজন নতুন খেলোয়াড় ছিল। আরব আমিরাতের অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে এই সিরিজটি আমাদের কাছে অনেক বড়। এখানে একটা একটা করে ম্যাচ নিয়ে আমরা চিন্তা করব।
প্রশ্ন : অধিনায়ক হিসেবে কাজটা কতটা কঠিন?
চিগুম্বুরা : অবশ্যই এটা কঠিন। সেই সঙ্গে হতাশাজনকও। মিডিয়া থেকে সব সময়ই চাপ থাকে, সে সব সামলে পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে ভালো করাটা আমাদের দায়িত্ব। সর্বশেষ দুদিনের অনুশীলনের ছেলেরা সিরিয়াস ছিল। আমি নিশ্চিত সবাই আগামীকাল (শুক্রবার) ভালো খেলতে মুখিয়ে আছে।
প্রশ্ন : অভিজ্ঞরা ফিরে এসেছে; এটাকে কিভাবে দেখছেন?
চিগুম্বুরা : এটা আমাদের জন্য বড় পাওয়া। তারা অভিজ্ঞ, এখানে আগে খেলেছে। এই সফরে তাদের অবদান পাওয়াটা ভালো ব্যাপার হবে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :