সন্ধ্যা ৭:০১, সোমবার, ২০শে মে, ২০১৯ ইং
/ অলিম্পিক (বিওএ) / বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও আতিথেয়তা দেবে ভারত
বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও আতিথেয়তা দেবে ভারত
জানুয়ারি ১৯, ২০১৬



ফেব্রুয়ারি মাসের ৫ তারিখ থেকে ভারতের গুয়াহাটি ও শিলংয়ে অনুষ্ঠেয় এসএ গেমসের ১২ তম আসরে বাংলাদেশকে ঝামেলামুক্ত ভিসা, সর্বোচ্চ নিরাপত্তাসহ গেমস ভিলেজে অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পর্যাপ্ত দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে সফররত ভারতের ক্রীড়া বিষয়ক প্রতিনিধিরা।
মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন ভবনে সাংবাদিকদের কাছে এই বিষয়ে আলোকপাত করেন এবারের আয়োজক ভারতের অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের দুই প্রতিনিধি ড: এসএম বালি ও রাকেশ কুমার। ড: এসএম বালি ভারত অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিত্ব করছেন আর ড: রাকেশ কুমার ভারতের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করছেন।
বাংলাদেশ সফরে এসে দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক খ্যাত এই এসএ গেমসে অংশগ্রহণের জন্য দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং ক্রীড়া সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অংঘসংগঠনের সঙ্গে বেশ কয়েকটি সভায় অংশ নিয়েছেন এই দুই প্রতিনিধি। বাংলাদেশের ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনার পর দেশটির এসএ গেমসে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ নিয়ে তারা আশানুরুপ সাড়া পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন। শুধু তাই নয়, এসএ গেমসে ক্রীড়া মন্ত্রীকে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বলেও জানালেন তারা।
এই প্রসঙ্গে এসএম বালি বলেন ‘বাংলাদেশ থেকে এসএ গেমসের এবারের আসর সর্বাধিক সংখ্যক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করছে জানতে পেরে আমরা ভীষণ খুশি। বন্ধুপ্রতীম এই দেশটি গুয়াহাটি ও শিলংয়কে তাদের ক্রীড়া নৈপুণ্য দেখিয়ে আসরকে আলোকিত করবে, সেই মাহেন্দ্রক্ষনের জন্য আমরা অপেক্ষা করছি।’
একই প্রসঙ্গে ড. রাকেশ কুমার বলেন, ‘আমরা এখানে একটি উদ্দেশ্য নিয়েই এসেছি আর তা হলো, সর্বাধিক সংখ্যক প্রতিযোগী নিশ্চিত করা। মনে হয় আমরা আমাদের উদ্দেশ্য সফল করতে সক্ষম হয়েছি।’
উল্লেখ্য এসএস গেমসের এবারের আসরে বাংলাদেশ থেকে ২২ টি ইভেন্টে ২৪১ জন পুরুষ ও ১৮ টি ইভেন্টে ১৬৮ জন নারী প্রতিযাগী অংশ নিচ্ছেন। ৫ ফেব্রুয়ারি গুয়াহাটিতে গেমসের উদ্বোধন করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের উত্তর-পুর্ব প্রদেশের সংষ্কৃতিসহ তুলে ধরা হবে অংশগ্রহণকারী বাকি ৭টি দেশের সংষ্কৃতিও।
২৩টি ডিসিপ্লিনের এবারের এসএ গেমসে মোট স্বর্ণ পদকের সংখ্যা ২২৮টি, রৌপ্য ২২৮টি ও ৩০৮টি ব্রোঞ্জ। মোট ডিসিপ্লিনের ১৬টি অনুষ্ঠিত হবে গুয়াহাটি ও বাকি ৭টি হবে শিলংয়ে। আর এসএ গেমসে অংশ নিতে ১৫০৫ জন নারী ও ১১৬৭ জন পুরুষ অ্যাথলেট এরই মধ্যে রেজিস্ট্রার্ড হয়েছেন বলে তারা দাবী করেন।
গেমসের মাসকট হিসেবে থাকছে ‘তিখর’ নামের ছোট অথচ তীক্ষ ও আধুনিক স্পোর্টিং মানসিকতার এক গন্ডার। আর থিম সং থাকছে, প্রয়াত ভুপেন হাজারিকার “পৃথিবী এখন ক্রীড়াঙ্গন, ক্রীড়া হল শান্তির প্রাঙ্গন।”
এদিকে, গেল বছরের ডিসেম্বরে দেশটিতে অনুষ্ঠিত সাফ ফুটবলে রাজনৈতিক টানাপোড়েনের জন্য অংশ নেয়নি পাকিস্তান। তবে, সাফ ফুটবলে অংশ না নিলেও এসএ গেমসে পাকিস্তানের অংশ গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই দুই প্রতিনিধি। এসএ গেমস চলকালীন ভিলেজে, গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য সহজ যাতায়তসহ ইতোমধ্যেই মনোরম পরিবেশের আবাসস্থলসহ উন্নত ও মানসম্মত খাবারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলেও তারা আশ্বস্ত করেছেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :