সন্ধ্যা ৬:০১, শুক্রবার, ২৪শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ / প্রত্যাশা চাপ নয়, বাংলাদেশের অনুপ্রেরণা
প্রত্যাশা চাপ নয়, বাংলাদেশের অনুপ্রেরণা
জানুয়ারি ২৬, ২০১৬

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে প্রত্যাশার ভারে নুইয়ে পড়ছেন না মেহেদি হাসান মিরাজ। বাংলাদেশ অধিনায়ক বরং এটিকেই করে নিতে চান অনুপ্রেরণা। এমনিতে বিশ্বের প্রায় সব ক্রিকেট খেলুড়ে দেশেই অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ আলোড়ন জাগায় সামান্যই। কিন্তু ক্রিকেট উন্মাদনার বাংলাদেশে এই বিশ্বকাপও তুলেছে আলোচনার ঝড়। লোকের আগ্রহের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে প্রত্যাশাও। ক্রিকেট আঙিনায় কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে, দেশের মাটিতে ছোটদের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন।
প্রত্যাশার হাত ধরে আসে চাপ। বড় স্বপ্ন মানে চাপের ভারও বেশি। তবে চাপটাকে পেয়ে বসতে দিতে চান না মিরাজ। টুর্নামেন্ট শুরুর আগের দিন মঙ্গলবার চট্টগ্রামের জহুর আহমদে চৌধুরী স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক জানালেন, লোকের চাওয়াকে অনুপ্রেরণা মেনে মাঠে নামতে চান তারা। “মানুষের আশা তো অবশ্যই বেশি। দেশের মাটিতে বিশ্বকাপ, সবাই চায় আমরা ভালো করি। আমাদের পারফরম্যান্সও বলে দিচ্ছে যে আমরা ভালো করছি। সবার আশা থাকবেই। তবে এটাকে চাপ ভাবলে চলবে না। বরং উৎসাহ ধরে নিয়ে খেলতে হবে। আমাদের সেই আত্মবিশ্বাস আছে।”
গত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের পর পরই কাজ শুরু হয়েছিল এই দল গড়ে তোলায়। গত দেড় বছরে দলের পারফরম্যান্সও দারুণ। বুধবার প্রথম ম্যাচের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুটি সিরিজে অনায়াসেই জিতেছে মিরাজরা; সিরিজ জিতেছে শ্রীলঙ্কা, জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। অধিনায়কের মতে, এই সাফল্যযাত্রাই দারুণ আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে দলকে।
“সাফল্য পেয়েছি বলেই সবাই আমাদের নিয়ে আশা করছে। আমরা আত্মবিশ্বাসী। আমাদের স্ট্যান্ডার্ড আমরা বুঝি, সেটা পূরণ করার চেষ্টা করব। সবার আশা পূরণ করার চেষ্টা করব। তবে এটা চাপ নয়। ক্রিকেট খেলাটা প্রক্রিয়ার খেলা, চাপ ভাবার কারণ নেই। আমাদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারলেই আমরা পারব।”



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :