রাত ১১:০৩, বুধবার, ২৯শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ হকি / পাকিস্তানি গোলরক্ষক কোচকে আনছে হকি ফেডারেশন
পাকিস্তানি গোলরক্ষক কোচকে আনছে হকি ফেডারেশন
জানুয়ারি ১৩, ২০১৬

দুই সপ্তাহের জন্য পাকিস্তানি গোলরক্ষক কোচ মনসুর আহমেদকে ঢাকায় আনার চেস্টা করছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন। আজ বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হকি ফেডারেশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সহ-সভাপতি খাজা রহমতউল্লাহ।
২০১৪ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩০ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশ হকি দলের গোলরক্ষক কোচ ছিলেন মনসুর আহমেদ। তারই শেখানো কৌশলে উজ্জীবিত ছিলেন কিপার অসীম গোপ। সে সময়ে দলের কিপিংয়ের চেহারাই পাল্টে দিয়েছিলেন এই অলিম্পিয়ান। যে কারণে এশিয়ান গেমস বাছাইপর্বে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়ে টিকিট পায় ইনচনের। মনসুরকে বাংলাদেশে আনার ব্যাপারে যথেস্ট সহযোগিতা করেন ওই সময়ে হকি জাতীয় দলের পাকিস্তানি কোচ নাভিদ আলম।
এ প্রসঙ্গে খাজা রহমতউল্লাহ বলেন, ‘ওই সময়ে মনসুর খুব ভালো প্রাকটিস করিয়েছেন। তার কারণেই গোলরক্ষকরা সাহস সঞ্চয় করেছে। তাই আমরা আবারও মনসুরকে আনার চেষ্টা করছি। তাকে ও পাকিস্তান বোর্ডকেও চিঠি দেওয়া হয়েছে। সবকিছু ঠিকঠাক মতো হলে ১৭ জানুয়ারি আসতে পারে সে। যদিও বেশি দিন হাতে নেই। তারপরও মনে করছি, যেহেতু অসীম, নিপ্পন আগেও তার কাছে অনুশীলন করেছে। সেহেতু ১২ দিনেই অনেক কিছু শিখতে পারবে। যা এসএ গেমসে অনেক কাজে দিবে। তার থাকা-খাওয়া যাতায়াতের ব্যবস্থা আমরাই করবো। এছাড়া এই ক‘দিনে এক হাজার ডলার বেতন দেওয়ার কথাও বলেছি। যদিও সে আড়াইহাজার ডলারের কথা বলেছে।’
মনসুরের প্রসঙ্গ উঠতেই অসীম গোপের উচ্ছ্বসিত কণ্ঠ। বলেন, ‘পুরোপুরি না পেয়েও ১০-১২ দিন যদি কোনও কোচকে পাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই ভালো হবে। আর সে যদি হয় মনসুরের মতো কোচ। তাহলে তো পোয়াবারো।’
অসীমের কথা শেষ না হতেই তার মুখের কথা কেড়ে নিয়ে অভিজ্ঞ গোলরক্ষক জাহিদ হোসেন বলেন, ‘বর্তমান পাকিস্তানের সেরা গোলকিপার ইমরান বাট এই মনসুরের হাতে গড়া। এর আগে সালমান আকবর। তার আগে মালয়েশিয়ার এস কুমার। যারা এশিয়ায় সেরা হিসেবে স্বীকৃত। তাকে যদি হকি ফেডারেশন ৬ মাস হতে একবছর রাখতে পারে। তাহলে এশিয়ায় বাংলাদেশ হতে সেরা কিপার তৈরি হবে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :