রাত ১:৩৩, বৃহস্পতিবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / ‘পরীক্ষা-নিরীক্ষায়’ অনুত্তীর্ণ বাংলাদেশ
‘পরীক্ষা-নিরীক্ষায়’ অনুত্তীর্ণ বাংলাদেশ
জানুয়ারি ২০, ২০১৬

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চার ম্যাচের সিরিজের প্রথম দুটি জিতে বেশ নির্ভারই ছিল বাংলাদেশ। এমিয়া কাপ ও টোয়েন্টি২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে তাই এ ম্যাচে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু চার অভিষিক্তের দল নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে। সফরকারীদের ১৮৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৬ রান সংগ্রহ করতে পেরেছে বাংলাদেশ। আর ৩১ রানে হেরে যাওয়ায় সিরিজ জিততে পরের ম্যাচের দিকেই তাকাতে হবে বাংলাদেশকে।
01
খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে বুধবার বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ দলে চারজনের অভিষেকসহ পাঁচটি পরিবর্তন আনা হয়েছিল। মুস্তাফিজুর রহমান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, আল আমিন হোসেনসহ বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার এ ম্যাচে মাঠে নামেননি। আর সে সুয্গে কাজে লাগিয়ে শুরুতেই ঝড়ো ব্যাটিং করেছে জিম্বাবুয়ে। ৩.৫ ওভারেই ৪৫ রান সংগ্রহ করেন দুই ওপেনার মাসাকাদজা ও সিবান্দা। তবে চতুর্থ ওভারের শেষ বলে বিপজ্জনক মাসাকাদজাকে সাজঘরে ফেরান অভিষিক্ত মোহাম্মদ শহীদ।
এরপর জিম্বাবুয়ের ব্যাটিংয়ে জোড়া আঘাত হানেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সিবান্দা ও মুতামবামিকে আউট করেন বাঁহাতি এ স্পিনার। কিন্তু উইলিয়ামসকে সঙ্গে নিয়ে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে যান ম্যালকম ওয়ালার। ৭ ওভারে তাদের ৭৪ রানের জুটিই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ জিম্বাবুয়ের দিকে ঠেলে দিয়েছে।
231915
আর এ জুটি ভেঙে ফের সাকিব আল হাসানই বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন। ওয়ালারকে তিনি ৪৯ রানে আউট করেন ১৭.৫ ওভারে। আর শেষ ওভারে এসে নিজের খানিকটা ঝলক দেখাতে পেরেছেন অভিষিক্ত আবু হায়দার রনি। এ বাঁহাতি পেসার শেষ ওভারে প্রথম বলে উইলিয়ামসকে এলবিডব্লিউ করেছেন। আর পঞ্চম বলে সিকান্দার রাজাকে সাব্বির রহমানের ক্যাচে পরিণত করেছেন। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৭ রানের সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে।
জবাবে ব্যাট করতে নেমে সিকান্দার রাজা ও ক্রেমারের বোলিং তোপে পড়ে ম্যাচের মাঝপথেই পথ হারায় বাংলাদেশ। শুরুতেই প্রথম ওভারের শেষ বলে দলীয় দুই রানে আউট হয়েছেন ওপেনার ইমরুল কায়েস। পরে সাব্বির রহমান ও সৌম্য সরকার জুটি বেঁধে বিপদ কাটানোর চেষ্টা করলেও তা স্থায়ী হয়নি। ৮ম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৬৯ রানে ক্রেমারের বলে মাসাকাদজার তালুবন্দি হয়েছেন। তার সংগ্রহ ২৫ রান।
তবে ইমরুল-সৌম্যের বিদায়ের পরও একপ্রান্ত আগলে রেখে দারুন ব্যাটিং করছিলেন সাব্বির রহমান। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচ জয়ের নায়ক সাব্বির অর্ধশত রান করেই থেমে যান। ১১.২ ওভারে দলীয় ৯২ রানে সিকান্দার রাজার বলে আউট হন তিনি। ৩২ বলে ৫০ রান করার পথে তিনি ৯টি চার মেরেছেন।
সাব্বির আউট হয়ে যাওয়ার পর অভিষিক্ত মোসাদ্দেক হোসেনও সাকিব আল হাসানের সঙ্গে বড় জুটি গড়তে পারেননি। ১৩.৫ ওভারে ব্যক্তিগত ১৫ রানে আউট হয়েছেন তিনি। পরে ১৫তম ওভারে মাহমুদুল্লাহ এবং সাকিব আউট হয়ে গেলে কার্যত জয়ের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের। পরে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান সংগ্রহ করতে পেরেছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের পক্ষে ক্রেমার ৩টি ও রাজা ২টি উইকেট নিয়েছেন। তবে ৪৯ রান করে ম্যালকম ওয়ালার হয়েছেন ম্যাচসেরা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :