বিকাল ৪:৩৭, মঙ্গলবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / জিতেও ক্ষমা চাইলেন মাশরাফি
জিতেও ক্ষমা চাইলেন মাশরাফি
জানুয়ারি ১৫, ২০১৬

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে চার উইকেটের জয় দিয়ে নতুন বছরে শুভ সূচনা পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে জয়ের চেয়ে এই সিরিজে গুরুত্বপূর্ণ ছিল এশিয়া ও বিশ্বকাপের জন্য সেরা টিম কম্বিনেশন খুঁজে নেওয়া। তবে সে পরিকল্পনায় প্রথমদিনে সামান্য ভুল করে ফেলেছেন খোদ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ম্যাচ শেষে এই ভুলের জন্য ক্ষমাও চাইলেন তিনি।
এশিয়া ও বিশ্বকাপের জন্য পরীক্ষা-নীরিক্ষা করার লক্ষ্যে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দলে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন বোলিং অলরাউন্ডার শুভাগত হোমকে। বোলিং অলরাউন্ডার হিসাবে দলে থাকলেও বোলিংই করতে পারেননি শুভাগত। একজন বোলার হিসাবে তাকে দলে নিয়ে বল না করানোয় ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ক্ষমা চান মাশরাফি।
শুক্রবার খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ম্যাচ শেষে মাশরাফি বলেন, ‘শুভাগতর ব্যাপারটা ছিল, আসলে আমরা চাইনি ও চারে ব্যাট করুক। ওই জায়গায় রিয়াদের ব্যাটিং করার কথা ছিল। তারপরও ওকে পাঠানো হয়েছে কারণ ও দলে খেলেছে একজন বোলিং অলরাউন্ডার হিসাবে। ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী আমি ওকে বোলিং করাতে পারিনি। ওকে বল করানো উচিৎ ছিল। এখানে আমার একটা ভুল হয়ে গেছে। এর জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি।’
এর আগেও টেস্ট ও ওয়ানডেতে শুভাগতকে সুযোগ দিয়ে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ শিবির। প্রয়োজনের তুলনায় তাকে বেশি সুযোগ দেয়া হচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এটাতো ওর প্রথম টি-টোয়েন্টি। সুযোগ বেশি কোথায় পেলো। একটা ম্যাচ দেখে কাউকে কিছু বোঝা যায় না। আর ওকে বোলিং না করানোর জন্য আমি প্রথমেই ক্ষমা চেয়েছি।’
তবে এদিন ভুল হলেও পরের ম্যাচে ঠিকভাবেই তাকে ব্যবহার করবেন বলে জানান ম্যাশ। শুভাগতর ব্যাপার ছাড়া বাকি পরীক্ষায় সফল বলে উল্লেখ করেন তিনি। উদাহরণ হিসাবে টানেন সোহানের দুর্দান্ত কিপিং, তিন নাম্বারে সাব্বিরের দারুণ ব্যাটিং, পাঁচ ও ছয় নাম্বারে মুশফিক ও সাকিবের দায়িত্বশীল ব্যাটিং। এই সব কিছুতে দারুণ ভাবে সফল হয়েছেন বলে জানান অধিনায়ক।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :