সকাল ৭:২০, রবিবার, ৩০শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ / এবারের বাংলাদেশ এগিয়ে ‘বোঝাপড়ায়’
এবারের বাংলাদেশ এগিয়ে ‘বোঝাপড়ায়’
জানুয়ারি ২৬, ২০১৬

পারস্পরিক সমঝোতা আর বোঝাপড়ায় বাংলাদেশ যুব দল আগের দলগুলোর চেয়ে এগিয়ে আছে বলে মনে করেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ মিজানুর রহমান।
অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বরাবরই বাংলাদেশ দলকে নিয়ে থাকে অনেক প্রত্যাশা। তবে প্রত্যাশার সঙ্গে প্রাপ্তি মিলেছে সামান্যই। কয়েকটি আসরে বাংলাদেশ ছিল অন্যতম ফেভারিট – দেশের মাটিতে ২০০৪ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে, সাকিব-তামিম-মুশফিকদের সোনালি প্রজন্মের খেলা ২০০৬ সালের শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপে, কিংবা এনামুল হক বিজয়-তাসকিন-সৌম্যদের খেলা ২০১০ ও ২০১২ বিশ্বকাপে। কিন্তু কোনো দলই সেমি-ফাইনালেও যেতে পারেনি।
বাংলাদেশের বয়সভিত্তিক দলগুলিতে দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করছেন মিজানুর রহমান। এই নিয়ে টানা দুটি যুব বিশ্বকাপে তিনি বাংলাদেশের প্রধান কোচ। গতবারও অভিজ্ঞতাটা ছিল আগের মতোই। অনেক আশা নিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত সেই প্লেট চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরতে হয়েছে বাংলাদেশকে।
সেই বিশ্বকাপের পরপর থেকেই এখনকার দলটিকে নিয়ে কাজ করছেন মিজানুর। এবারের দলটিকে তার মনে হয়েছে আগের দলগুলি থেকে আলাদা। নতুন অভিযান শুরুর আগের দিন মঙ্গরবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোচ ব্যখ্যা করলেন তা।
“যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সব দলই সবসময় ভালো ছিল। তবে এই দলটি আলাদা। সব দিক থেকে এগিয়ে রাখার কথা বললে, এই দলের কম্বিনেশন ভালো। সবাই সবাইকে দারুণ বোঝে।”
কোচের মতে, দীর্ঘ দিন এক সঙ্গে থেকে দলের গাঁথুনিটা হয়েছে দারুণ।
“অন্যবার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই যেটা হয়েছে, ২-৩টি ছেলে হুট করেই দলে চলে আসে। তখন হয়ত বিশ্বকাপ অনেকটাই কাছে চলে এসেছে, অন্যদের সঙ্গে একটা তারতম্য থেকে যায়। কিন্তু এই ছেলেগুলো সবাই এক সঙ্গে অনেক দিন ধরে আছে। মাঠের ভেতরে-বাইরে সবাই পরস্পরকে বোঝে। এই দলের সবচেয়ে বড় শক্তি এটা।”



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :