রাত ২:৩০, শুক্রবার, ২০শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ হকি / মীর্জা ফরিদ আহমেদের দাফন সম্পন্ন
মীর্জা ফরিদ আহমেদের দাফন সম্পন্ন
ডিসেম্বর ২৭, ২০১৫

বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি মীর্জা ফরিদ আহমেদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার উত্তরায় দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়। এর আগে রোববার সকালে মরহুমদের প্রথম নামাজ এ জানাযা মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। তার নামাযে জানাযায় ফেডারেশনের কর্মকর্তা, প্রিমিয়ার, প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব কর্মকর্তা উপস্থিত থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতির পক্ষ থেকে বিমান বাহিনীর একটি বিশেষ দল তাকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। এছাড়াও জানাযায় ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি আলমগীর মো: আদেল, জাতীয় ক্রীড়া নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের প্রথম সচিব কাজী আনিসুর রহমান, সাবেক সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের মহা-সচিব বশির আহমেদ, হাবিবুল আলম (বীর প্রতিক) প্রখ্যাত প্রবীন ক্রীড়া সাংবাদিক মো: কামরুজ্জামান, পূর্ব পাকিন্তান দলের হকি খেলোয়াড় মীর আনোয়ার করিম,বুলবান, আব্দুল মজিদ, সাইদ, সাবেক জাতীয় হকি খেলোয়াড় এহতেশাম সুলতান, প্রতাপ শংকর হাজরা, বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতির সভাপতি হাসানউল্লাহ খান রানা, বাহফের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মো: আলমগীর কবীর, সাবেক জাতীয় হকি খেলোয়াড় এহসান নাম্মি, হোসেন ইমাম চৌধুরী শান্টা, ফেডারেশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজেদ এ এ আদেল, বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি খাজা রহমতউল্লাহ, আব্দুর রশিদ শিকদার, ক্রীড়া পরিদপ্তরের সহকারী পরিচালক তারিকউজ্জামান নান্নু ও ফেডারেশনের অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি আয়োজিত অগ্রজ ক্রীড়া সংগঠক সম্মাননা দেয়া হয় মীর্জা ফরিদ আহমেদ মিলুকে। তিনি এর আগেও ক্রীড়ালেখক সমিতির বর্ষসেরার পুরস্কার পান। ক্রীড়াঙ্গণের অতি পরিচিত মুখ মিলুর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। গত ২৪ ডিসেম্বর রাজধানীর উত্তরায় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান তিনি। তিনি ২ কন্যা ও এক পুত্র সন্তান ও স্ত্রী রেখেসহ অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার তিন সন্তানই আমেরিকা প্রবাসী। তারা রোববার সকালে দেশে ফেরার পর হকি স্টেডিয়ামে মীর্জা ফরিদের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বাদ আসর উত্তরার ৪নং সেক্টর জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হয় তা দ্বিতীয় নামাজে জানাজা। এর পর তার লাশ আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
আগামী ৩১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বাদ আসর বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনে এক দোয়ার ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মাহফিলে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

মীর্জা ফরিদ আহমেদ এর সংক্ষিপ্ত বিবরণ

পিতার নাম : মরহুম আজিজ আহমেদ
মাতার নাম : মরহুমা আয়শা খাতুন
জন্ম : ২৮/১১/১৯৪৫ইং
জন্মস্থান : ফরিদপুর
নিজ জেলা : মানিকগঞ্জ
শিক্ষাগত যোগ্যতা : বি. কম, বি,আই,বি,এম
পেশা : ভাইস প্রেসিডেন্ট, (অব:) সিটি ব্যাংক লি:
খেলোয়াড়ী অভিজ্ঞতা :
ক) ১৯৫৮ সালে প্রথম বিভাগ হকি লীগে অংশগ্রহণ করেন।
খ) তদানিন্তন পূর্ব পাকিস্তান হকি দলে ১৯৬২ সাল থেকে স্বাধীনতা পূর্ব পর্যন্ত অংশগ্রহন করেন। এ সময়ে পূর্ব পাকিস্তানের একটি আঞ্চলিক দলের অধিনায়কত্ব করেন।
গ) ঢাকা জেলা হকি দলে নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন। এসময়ে বহুবার অধিনায়কত্ব করেছেন এবং বহুবার ঢাকা জেলা দলকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন।
ঘ) ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হকি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন।
কর্মকর্তা হিসেবে অভিজ্ঞতা
ক) ১৯৭৫-১৯৮১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।
খ) ১৯৮৪-১৯৮৮ সাল পর্যন্ত সাধারণ সম্পাদক এবং পরবর্তীতে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সিনিয়র সদস্য ছিলেন ।
গ) বর্তমানে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও হকি আম্পায়ার্স বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছিলেন।
ঘ) ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থার ২৫ বছর হকি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন।
ঙ) ১৯৭৮ সালে ব্যাংককে অনুষ্ঠিত ৮ম এশিয়ান গেমস এ বাংলাদেশ দলের সহকারী ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন।
চ) ১৯৮৮ সালে ভারতের দিল্লীতে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ যুব হকি দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন।
ছ) ২০০২ সালে কোরিয়ার বুশানে অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমস এ বাংলাদেশ দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন।

আম্পায়ার হিসেবে অভিজ্ঞতা
ক) সাবেক পূর্ব পাকিস্তান থেকে হকি আম্পায়ার হিসেবে খেলা পরিচালনা করেন। স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের অধিনে আম্পায়ার হিসেবে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত খেলা পরিচালনা করেন।
খ) পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক ও আন্তর্জাতিক গ্রেড ১ আম্পায়ার হিসেবে এশিয়ান হকি ফেডারেশন ও আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনের অনেক টুর্ণামেন্টের খেলা পরিচালনা করেন।
গ) ৪টি এশিয়ান গেমস, বাংলাদেশ বনাম শ্রীলংকা এবং ভারত বনাম পাকিন্তান এর মধ্যকার টেস্ট সিরিজ পরিচালনা করেন।
ঘ) বাংলাদেশে তিনিই একমাত্র আন্তর্জাতিক গ্রেড ১ আম্পায়ার হিসেবে পদোন্নতি পায়।
ঙ) ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি ও ক্রীড়া সাংবাদিক সমিতি কর্তৃক প্রদত্ব শ্রেষ্ঠ আম্পায়ারের পুরস্কার লাভ করেন।
চ) এশিয়ান হকি ফেডারেশনের ডেভলপমেন্ট কমিটি ও আম্পায়ারিং কমিটির সদস্যর দায়িত্ব পালন করেন।
জ) এশিয়ান গেমস, এশিয়া কাপ, এশিয়ান গেমস কোয়ালিফাইং হকি টুর্ণামেন্ট এ টেকনিক্যাল অফিসার ও জাজের দায়িত্ব পালন করেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :