সকাল ১০:৫২, মঙ্গলবার, ২৫শে জুলাই, ২০১৭ ইং

এক নজরে

সাইফ পাওয়ারটেক আন্তর্জাতিক রেটিং দাবা প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হন আন্তর্জাতিক মাস্টার মোহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন ও রানার-আপ গ্র্যান্ড মাস্টার জিয়াউর রহমান। আজ সোমবার এনএসসি-র সভাকক্ষে তাদেরকে পুরস্কৃত করা হয়।
চ্যাম্পিয়ন আন্তর্জাতিক মাস্টার মোহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন ও রানার-আপ গ্র্যান্ড মাস্টার জিয়াউর রহমানকে সাড়ে ৮৭ হাজার টাকা করে অর্থ পুরস্কার দেয়া হয়। প্রতিযোগিতার তৃতীয়, আন্তর্জাতিক মাস্টার আবু সুফিয়ান শাকিল ও চতুর্থ ফিদে মাস্টার তৈয়বুর রহমানকে চল্লিশ হাজার টাকা করে অর্থ পুরস্কার দেয়া হয়।
পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিরেন র‌্যাব-এর মহাপরিচালক ও দাবা ফেডারেশনের সভাপতি বেনজীর আহমেদ। এ সময় স্পন্সর প্রতিষ্ঠান সাইফ পাওয়ারটেকের এমডি তরফদার রুহুল সাইফ, টুর্নামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান কে এম শহিদউল্যা উপস্থি ছিলেন।

রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট কিনলেই সব ফ্রি

গ্যালারিতে বসে যারা রাশিয়া বিশ্বকাপ উপভোগের কথা ভাবছেন তাদের জন্য সুসংবাদ। রাশিয়ায় ফুটবলপ্রেমীদের খরচ কিছুটা হলেও কমবে। রাশিয়ার যে ১১টি ভেন্যুতে বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে সেই শহরে ট্রেনে টিকিট কাটতে হবে না ফুটবলভক্তদের। বিশ্বকাপ চলাকালীন ওই ১১ শহরে ফ্রিতে ট্রেন ভ্রমণ করতে পারবেন বিশ্বকাপ দেখতে যাওয়া ভক্ত, সমর্থক ও ফুটবলপ্রেমীরা। তবে বড় চমক হচ্ছে, অনলাইনে ফুটবল ম্যাচের টিকেট কিনলে ভিসা ছাড়াই প্রবেশ করা যাবে রাশিয়ায়।
চলতি বছরের জুলাইয়ে রাশিয়ায় শেষ হওয়া কনফেডারেশন্স কাপেও ফ্রি ট্রেন ভ্রমণ চালু ছিলো। সারা বিশ্ব থেকে হাজির হওয়া ফুটবপ্রেমীদের কাছে প্রশংসিত হয়েছিলো রাশিয়ার এই পদক্ষেপ। কনফেডারেশন্স কাপের অভিজ্ঞতা থেকে বিশ্বকাপেও ফ্রি ট্রেন ভ্রমণ চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাশিয়ান সরকার।

ট্রেনে ফ্রি ভ্রমণের জন্য ভক্তকে অবশ্যই অনলাইন থেকে ম্যাচের টিকিট কিনতে হবে। টিকেট কেনার সময়ই তাকে একটি ফ্যান আইডি দেওয়া হবে। ওই ফ্যান আইডি দিয়ে রাশিয়ায় ভিসামুক্ত প্রবেশাধিকার পাওয়া যাবে এবং ফ্রি ট্রেন ভ্রমণ করা যাবে।
২০১৮ বিশ্বকাপ চলাকালীন ফ্রি ট্রেন টিকেট ব্যবস্থা করা নিয়ে দেশটির পরিবহন ব্যবস্থার প্রধান তেরেন্তি মেচেরিকোভ বলেছেন, ‘আমাদের মাথায় দুটি বিষয় ছিলো। রাশিয়ায় আসা হাজার হাজার ভক্তদের কিভাবে থাকতে দেওয়া যায় ও আয়োজক শহরগুলোতে যাতায়াত ব্যবস্থা কতটা সহজ করা যায়। ফ্রি ট্রেন টিকেটের মাধ্যমে আমরা এই দু’টি সমস্যারই সমাধান করেছি। বেশিরভাগ ট্রেন রাতে যাত্রা শুরু করে এবং সকালে পৌঁছায়। তাই ভক্তরা রাতে ঘুমিয়ে সকালে তাদের গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে পারবে।’
টিকিট ছাড়া যাতায়াতে অবশ্য বিশাল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বে রাশিয়ান রেলওয়ে কোম্পানিগুলো। তবে সরকারি খাত থেকে তাদের প্রত্যেক পয়সার ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মেচেরিকোভ।
২০১৮ সালের ১৪ জুন পর্দা উঠবে রাশিয়া বিশ্বকাপের। চলবে ১৫ জুলাই পর্যন্ত। চলতি বছরের ডিসেম্বরে ক্রেমলিনে বিশ্বকাপ ড্র’র পর টিকেটের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন ভক্তরা।

ক্রিকেট

বিপিএলে প্রতিম্যাচে পাঁচ বিদেশি

এবারের বিপিএলে, একাদশে চারজন না পাঁচজন বিদেশি ক্রিকেটার খেলানো হবে সেটা নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছিল। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিকই কয়েকমাস আগে এই বিতর্ক উস্কে দিয়েছিলেন, আমাদের দেশে ‘কোয়ালিটি ক্রিকেটারের সংখ্যা কম’ বলে।
এ বিষয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই ফ্রাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে বৈঠক করেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়, পাঁচজন করে বিদেশি খেলানোর। অবশেষে, গভর্নিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হলো পাঁচজন খেলানোর।
বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের এক সংবাদ সম্মেলনে সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানান, প্রতিটি ম্যাচে একাদশে পাঁচজন করে বিদেশি খেলাতে হবে। বাকি ৬ জন থাকবেন দেশি ক্রিকেটার।
আইপিএল, সিপিএল, পিএসএল থেকে শুরু করে সবগুলো ফ্রাঞ্জাইজি লিগের নিয়মই হচ্ছে, চারজন করে বিদেশি ক্রিকেটার এবং সাতজন করে দেশি ক্রিকেটার খেলানোর। বিপিএলের আগের চার আসরেও ছিল এই নিয়ম।
কিন্তু এবার একটি দল বেড়ে যাওয়ার কারণেই নাকি এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ১টি দল বেড়ে যাওয়ার কারণে এখন বিপিএলে মোট দলের সংখ্যা ৮টি। চারজন করে বিদেশি খেলানো হলে, বাকি আরও সাতজন করে আট দলে মোটামুটি মানের মানসম্পন্ন ক্রিকেটার প্রয়োজন ৫৬ জন।
এই মুহূর্তে বাংলাদেশে এতগুলো মানসম্পন্ন ক্রিকেটার নেই যে, তাদেরকে দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেট খেলানো যাবে এবং বিপিএলকে আকর্ষণীয় করে তোলা যাবে। ফ্রাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে প্রতিদ্বন্দ্বিতাই আসল। সেটাই যদি না থাকে তাহলে বিপিএলের আকর্ষণও হারাবে।
সংবাদ সম্মেলনে মল্লিক জানান, ‘বৈঠকে আটটি ফ্রাঞ্চাইজির মধ্যে ৫টিই চেয়েছে ৫জন করে বিদেশি ক্রিকেটার। বাকি ৩টি চেয়েছে চারজন করে। মেজরিটি ভিত্তিতে আমরা ৫জন বিদেশি খেলানোর পক্ষেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

ফুটবল

আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয় ফুটবলের ফাইনালে গ্রিন ও ফারইস্ট ইউনিভার্সিটি

ওয়ালটন আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের (ফারাজ চ্যালেঞ্জ কাপ) ফাইনালে উঠেছে ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও স্বাগতিক গ্রিন ইউনিভার্সিটি। আজ সোমবার কমলাপুরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে, প্রথম সেমিফাইনালের প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ন ম্যাচে সিটি ইউনিভার্সিটিকে ২-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে ফারইস্ট ইউনিভার্সিটি। ম্যাচ সেরা হন জয়ী দলের আহসানউল্লাহ।
দ্বিতীয় সেমিফাইনালে স্বাগতিক গ্রিন ইউনিভার্সিটি ৩-০ গোলে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিকে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয়ন। ম্যাচ সেরা হন জয়ী দলের রানা।
টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা হবে আগামী বুধবার বিকেল ৪টার সময় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে।


ভিডিও
ICC #WT20 England Women vs Bangladesh Women Match Highlights
New Zealand vs Bangladesh world T 20 2016 Highlights HD
More Video
ফেইসবুক

হ্যান্ডবল
গলফ
দাবা
হকি
লন-টেনিস
আর্ন্তজাতিক
সাক্ষাৎকার
সাঁতার
এ্যাথলেটিকস্